উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনার বিকল্প নেই-অ্যাড. নূরুল আমিন রুহুল

ডিসেম্বর ৯, ২০১৮ ৯:৩৩ দুপুর

জাকির হোসেন বাদশা, মতলব (চাঁদপুর) ॥

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁদপুর-২ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল বলেছেন, নৌকা মুক্তিযুদ্ধের প্রতীক, উন্নয়নের প্রতীক শান্তির প্রতীক। তাই প্রতিটি নেতাকর্মী ও সকল জনগণকে নিয়ে এই মুক্তিযুদ্ধের প্রতীকে নির্বাচন করতে চাই। মতলবে কো ভেদাভেদ রাখবো না। আওয়ামী লীগে কোন ভেদাভেদ থাকে না, থাকতে পারে না।

রোববার দুপুরে উপজেলার বদরপুরে হযরত শাহ্ সোলেমান লেংটার মাজার জিয়ারত শেষে আয়োজিত এক পথসভা প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সোলেমান লেংটার মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন নৌকার প্রার্থী নূরুল আমিন রুহুল। এর আগে বাংলা বাজার বেরী বাধ মোড়ে ও পরে পাঠান বাজার আবেদীয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে, ছেঙ্গারচর পৌর পার্টির অফিসে, আনন্দ বাজার মোড়ে এবং ফরাযীকান্দিতে কয়েকটি পথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পথসভা পথসভা পরিচালনা করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস।
সংসদ সদস্য প্রার্থী নুরুল আমিন রুহুল আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়ে মতলবে পাঠিয়েছেন। সেই লক্ষ্যে আপনারা যদি আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেন তাহলে মতলব অবশিষ্ট কাজগুলো সম্পন্ন করবো। আপনারা জানেন যে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়নের শিখরে পৌঁছে নিয়ে গেছেন। এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনার বিকল্প নেই।

রুহুল বলেন, আমি নির্বাচিত হলে মতলবকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করবো। মতলবকে একটি শান্তপূর্ণ মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলবো। মতলব আমার মাতৃভূমি। মন ভরে এই মতলববাসীর সেবা করতে চাই। আমি আশা করি আপনারা আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে সংসদে পাঠাবেন।
পথসভায় উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও আওয়ামীলীগ নেতা এম. ইসফাক আহসান, গ্রাম ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব (অব.) মুক্তিযোদ্ধা রশিদ সরকার, শাহবাগ থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আক্তার হোসেন, ছেঙ্গারচর পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হাসান কাইয়ুম, কমিশনার আব্দুল মান্নান বেপারী, সাবেক কমিশনার জামান সরকার, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য রিয়াজুল হাসান রিয়াজ, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন ডালিম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ইঞ্জি. জামাল হোসেন নাহিদ, সাদুল্লাপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান স্বপন পাঠান, জহিরাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তার গাজী, সাদুল্লাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহজাহান সরকার, ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারন সম্পাদক কাজী সালাউদ্দিন, অ্যাড. জসিম উদ্দিন, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা আলমাহমুদ টিটু মোল্লা, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা অ্যাড. সেলিম মিয়া, প্রভাষক মেহেদী মাসুদ, যুবলীগ নেতা ওমর খান, ছেঙ্গারচর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি নকিব উদ্দিন, সাবেক সাধারন সম্পাদক আলী নূর, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আক্তার হোসেন, দূর্গাপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি আবুল হাসেম রিপন, ছাত্রলীগ নেতা মুছা, মমিনুল ইসলাম’সহ উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।