খবরের সন্ধানে সাংবাদিক ওসমান গনি

জানুয়ারি ১৪, ২০১৯ ৩:০১ দুপুর

শিরিনা আক্তার

যেখানে অন্যায় অত্যাচার, অপরাধ, দুর্নীতি, দুঃশাসন সেখানেই নির্ভীক, সাহসী, এক সাংবাদিকের পদচারণ। যে কোন মূল্যেই তিনি তুলে নিয়ে আসবেন ঘটনার অন্তরালের মূল ঘটনা। অপরাধ ও অপরাধী যত গভীরেই থাকুক না কেন সেখান থেকেই তিনি তার চতুরতা, একনিষ্ঠ কর্মদক্ষতা দিয়ে টেনে বের করেন লুকানো সেইসব অপরাধীদের। তাদের মন্দ কাজের সকল আমলনামা। তুলে ধরেন দেশ ও জাতীর সম্মুখে। যিনি সত্যের সন্ধানরত নির্ভীক সাংবাদিক, জীবনে সুখ বিলাস লোভে মোহ ত্যাগের প্রতীক। সহজ সরল জীবন ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ।

অপরাধ মুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার অপ্রতিদন্ধি। অন্যায়ের সাথে কখনোই আপোষ করে না যিনি তিনি আর কেউ নন, তিনি হলেন সাংবাদিক ওসমান গনি।আজকের আকাশে অনেক তারা, দিন ছিল সূর্যে ভরা। আজকের জোসনাটা আরও সুন্দর,সন্ধ্যাটা আগুন লাগা। আজকের পৃথিবী তোমার জন্য, ভরে থাকা ভাল লাগা। মুখরিত হবে দিন গানে গানে, আগামীর সম্ভাবনা। আপনি এই দিনে পৃথিবীতে এসেছন তাই শুভেচ্ছা আপনাকে, তাই অনাগত ক্ষণ হোক আরও সুন্দর উজ্জ্বল দিন কামনায়। আজ জন্মদিন আপনার HAPPY BIRTHDAY DEAR RESPECTABLE BROTHER OSMAN GANI.

গত ৩০শে ডিসেম্বর ছিল সাংবাদিক ওসমান গনি’র জন্মদিন।১৯৭৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলার ৯নং মাইজখার ইউনিয়নের মেহার গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে মায়ের কোল জুড়ে ভূমিষ্ঠ হয় এক নবজাতক শিশু। আর সেই নবজাতক শিশুটি আজকের স্বনামধন্য সাংবাদিক ওসমান গনি। এ সময়ের অপরাধ সাংবাদিকতায় দেশের কয়েকজন ঈর্ষান্বিত সাংবাদিকের মধ্যে ওসমান গনি নামটি বেশ পরিচিত ও অন্যতম।

সাংবাদিকতার শুরুটা ১৯৯১ সালে করেন তিনি। ছাত্রজীবন থেকেই বিভিন্ন পত্রিকায় লেখা লেখির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন তিনি। আর সেই থেকেই সাংবাদিকতার হাতেখড়ি পেয়েছিলেন ওসমান গনি। সাংবাদিকতার মত মহান পেশা ছেড়ে অন্য কিছুই চিন্তা বা ভাবনা ভাবতে চান না সাংবাদিক ওসমান গনি। দৈনিক আজকের কাগজ ও দৈনিক বাংলার বাণী পত্রিকাতে চান্দিনা প্রতিনিধি হিসাবে কাজ শুরু করেন।পরে পত্রিকা দু’টির প্রকাশনা বন্ধ হয়ে গেলে তিনি তার স্বীয় কর্ম দক্ষতার
মাধ্যমে ঢাকা থেকে প্রকাশিত দেশের প্রথম শ্রেনির কয়েকটি পত্রিকার চান্দিনা প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করেন।বর্তমানে তিনি ঢাকা থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকার সম্পাদকীয় পাতার একজন নিয়মিত কলাম লেখক।এবং তিনি চান্দিনা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সহসভাপতিও ছিলেন।সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি একজন ব্যবসায়ী ও এক সূত্রে জানা যায়।

ওসমান গনি’র নম্রতা, ভদ্রতা, বাচন ভঙ্গি, শুদ্ধ উচ্চারণ, উত্তম চারিত্রিক গুণাবলী, ভদ্র, প্রাণবন্ত ও ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন একজন মানুষ। সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হল তার সৃষ্টিশীলতা বা সঞ্জননই ক্ষমতা, যা হল মৌলিক ভাষিক এককগুলিকে সংযুক্ত করে অসীম সংখ্যক বৈধ বাক্য সৃষ্টির ক্ষমতা, যে বাক্য গুলির অনেক গুলিই হয়ত আজও কেউ বলেনি বা শোনেনি। প্রকাশভঙ্গী নম্র ও কোমল আচরণের মানুষকে সবাই ভালোবাসে, সমীহ করে আর তাই তিনি সকলের কাছে সমান সমাদৃত। কোমল আচরণের দ্বারা মানুষের চারিত্রিক মাধুর্যটা প্রকাশ পায়।

ব্যক্তিগত জীবনে এক ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের জনক।ওসমান গনি’র এই অন্যবদ্য সফলতার পেছনে একজন সাংবাদিকের বিশেষ অবদান রয়েছে। আর সেই সাংবাদিক হচ্ছেন জনাব লুৎফুর রহমান ও মামুনুর রশিদ সরকার। যার অনুপ্রেনায় ওসমান গনি’র এ পেশায় আসা ও একজন সাংবাদিক ও কলামিস্ট হিসাবে পরিচিতি লাভ করা। রাজনৈতিক জীবনে তিনি বঙ্গবন্ধুর আর্দশের অনুসারী।তিনি কলেজ জীবনে চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও সাহিত্য সম্পাদক ছিলেন,এছাড়া তিনি চান্দিনা উপজেলা ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় সদস্য ছিলেন। জন্মদিনের এই দিনে চঞ্চলা মন ষোড়ষী সাজ; বাঁধন কাটার সুর-দিচ্ছে উড়াল দূর। নিজের মতো নিজের কাজে কষ্ট অনেক, দুঃখ মাঝে; লাগুক ছটা আলোয়–মন্দ কাটুক ভালোয়। দুর চিঠিতে সুবাস পাঠাই ভালো তাকবেন এই আমার কামনা।

লেখক- শিরিনা আক্তার
এনজিওকর্মী