তালায় হারিয়ে যেতে বসেছে খেজুর গাছ, ভাটায় জ্বালানি হিসাবে ব্যাবহারের অভিযোগ

ডিসেম্বর ৫, ২০১৮ ১০:৩৩ দুপুর

এসএম বাচ্চু, তালা প্রতিনিধি:

তালায় কাক ডাকা ভোরে শিশির ভেজা ঘাস শীতের আগমনের জানান দিচ্ছে। মৌসুমী ভিত্তিক খেজুরের গাছ কাটা দিয়েই গ্রামীণ জনপদে শুরু হয় শীতের আমেজ। শীতের দিনের আকর্ষন দিনের শুরুতে খেজুরের রস,সন্ধ্যা রস ও সুস্বাদু গুড়-পাটালি। এবার শীতের আমেজ একটু আগেই এসে পড়েছে। জমিনে রোদ্দুরের গায়ে আধো আধো সোনালি রঙ ধরেছে। খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহে ব্যস্ত সময় পার করছেন তালা উপজেলার গাছিরা।

উপজেলার গ্রাম্যঞ্চালে রস বিক্রেতা সবুজ জানান, ইতোমধ্যেই আমার মত সকল গাছিরাই এক এক জন অন্তত ৫০ থেকে ১০০টি খেজুর গাছ কেটে ফেলেছেন। একটা খেজুর গাছ তিনবার কাটার পরে তাতে নলি লাগিয়ে রসের জন্য ভাঁড় পাতা হয়। একটা খেজুর গাছ থেকে দিনে দু’বার রস মেলে। ভোরের রসকে মিষ্টি এবং বিকালের রসকে তারি বলে। মাঘ মাস থেকে রস কমতে শুরু করে। ওই সময়ে রসের ঘনত্ব বাড়ে।

তালা উপজেলায় গ্রাম্যঞ্চাল বেশি থাকায় তালা সদর,জালালপুর,ইসলামকাটি,তেতুলিয়া,খলিলনগর ইউনিয়ন সহ বিভিন্ন গ্রামে কয়েক হাজার খেজুর গাছ রয়েছে।এ সব এলাকায় গাছ ঝাড়ার ধুম পড়েছে ।

স্থানীয়রা জানান, অতীতে উপজেলার সর্বত্র বহু খেজুর গাছ ছিল। ইটভাটায় জ্বালানির দাপটে খেজুর গাছ কেটে অনেকটাই সাবাড় হয়ে গেলেও যা আছে, ১২ ইউনিয়ন মানুষের খুশি করার পক্ষে কম । ইটভাটায় জ্বালনি হিসাবে অনেক গাছ বিক্রি করা হয়েছে । রস মৌসুমে প্রতিটি খেজুর গাছ ভাড়া হয় ২/৩ শ’ টাকায়। মৌসুমের শেষে অনেকেই গাছা বিক্রি করে দেন । মূলত ইট ভাটার জ্বালানির জন্য খেজুর গাছের চাহিদা রয়েছে। যদিও দাম অন্য গাছের তুলনায় কম।

খেজুর গাছের মালিকরা জানান, শীত দ্রুত এসে পড়ায় রস সংগ্রহকারীদের চাহিদা বেড়েছে । চলতি মৌসুমে একটি খেজুর গাছ থেকে ২০-৩০ কেজি রস পাওয়া যাচ্ছে। সপ্তাহে একদিন গাছ কাটা হলে তিন দিন রস পাওয়া যাচ্ছে।

গাছিরা জানান,আমাদের উপজেলাতে একসময় অনেক খেজুর গাছ ছিলো কিন্তু কালের বির্বতনে তা হারিয়ে যাচ্ছে । এখান থেকে ৫ বছর আগে আমাদের গাছ কাটার জন্য আমার মত অনেক লোক পেশা হিসাবে বেছে নিয়েছিলো কিন্তু এখন তেমন খেজুর গাছ না থাকায় এই কাজ কেও করতে চাই না ।

রসপায়ীরা জানান, শীতের সকালে ঠান্ডায় কাঁপতে কাঁপতে খেজুর রস খাওয়ার মজাই আলাদা। আরও মজা লাগে খেজুরের রস দিয়ে গুড়/পাটালি দিয়ে বিভিন্ন প্রকারের পিঠা বানিয়ে খাওয়া । সকাল ঘুম থেকে উঠে ১ গ্লাস রস খেলে শরীর অনেকটা সতেজ থাকে । আবার রসের পরে গাছ থেকে আমরা প্রায় সারা বছর

সকল রসপায়ী ও স্থানীয় ব্যাক্তিদের দাবি ,কিছু অসাধু ব্যাবসায়ীরা তাদের নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য খেজুর গাছ কেটে ইটের ভাটায় বিক্রয় করছে । যদি এই অসাধু ব্যাবসায়ীদের এখনি আটকানো না যায় তাহলে ভবিষৎতে তালা উপজেলা সহ প্রায় সকল উপজেলায় খেজুর গাছের সন্ধান পাওয়া দুষ্কার হয়ে পরবে ।##