নির্বাচন নিয়ে বেশ আশাবাদী মিশা সওদাগর

অক্টোবর ২৫, ২০১৯ ৩:৪৩ দুপুর

বিনোদন ডেক্সঃ

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে এবারও সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন অভিনেতা মিশা সওদাগর। অতীতের নির্বাচনগুলোতে একাধিক প্যানেল থাকলেও এবার মিশা সওদাগর এবং জায়েদ খান প্যানেলের বাইরে কোনও প্যানেল নেই।

সকাল ৯টা থেকে এফডিসিতে শুরু হয়েছে ভোটগ্রহণ। নির্বাচন ঘিরে কঠোর অবস্থানে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। নির্বাচন নিয়ে বেশ আশাবাদী মিশা সওদাগর। সকাল থেকে এফডিসিতে অবস্থান করছেন তিনি। কথা বলছেন ভোটারদের সঙ্গে। প্রায়ই সময় তাকে ঘিরে সমর্থকদের উচ্ছ্বাস দেখা যাচ্ছে। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বলেন, কিছুদিন আগে ছোট একটা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে। সে জায়গা থেকে আমরা চিন্তা করি নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বসব। এরপর নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন ভাইয়ের সঙ্গে বসেছি। আমি মৌসুমি আমরা দুজন বসেছি, পরিবেশ সুষ্ঠু করার চেষ্টা করি। নির্বাচন কমিশনার প্রশাসনের সহযোগিতায় সুন্দর একটা পরিবেশ উপহার দিয়েছেন। এরকম পরিবেশ আগে কখনও হয়নি। বহিরাগতরা প্রবেশ করতে পারেননি।

নির্বাচনে জয়লাভ নিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহর রহমতে আমরা শক্তিশালী একটা প্যানেল করেছি। যেখানে ডিপজল ভাই আছেন, রুবেল ভাই আছেন। আল্লাহর রহমত আমাদের সঙ্গে থাকলে আমরা বিপুল ভোটে জয়লাভ করব।

মিশা সওদাগর ছাড়াও সভাপতি পদে লড়ছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। সহ-সভাপতির দুটি পদে প্রার্থী হয়েছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল, রুবেল ও নানা শাহ। সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খানের প্রতিদ্বন্দ্বী ইলিয়াস কোবরা। সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন আরমান ও সাংকো পাঞ্জা।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে অভিনেতা সুব্রতর বিপরীতে কোনও প্রার্থী নেই। আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে লড়ছেন নূর মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ ও চিত্রনায়ক ইমন। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে একাই রয়েছেন জ্যাকি আলমগীর। সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে লড়বেন জাকির হোসেন ও ডন। কোষাধ্যক্ষ পদে অভিনেতা ফরহাদের কোনও প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। ফলে সুব্রত, জ্যাকি, আলমগীর ও ফরহাদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।