জামায়াত-শিবির বিশ্ববিদ্যালয়কে অশান্ত করার চেষ্টা করছে-জাবি উপাচার্য

নভেম্বর ৫, ২০১৯ ২:৩১ দুপুর

নিউজ ডেক্সঃ

আন্দোলনকারীদের পেছনে ইন্ধন যোগাচ্ছে জামায়াত-শিবির। তারাই মূলত বিশ্ববিদ্যালয়কে অশান্ত করার চেষ্টা করছে বলে মন্তব্য করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ফারজানা ইসলাম।

আজ মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে ক্যাম্পাসের উপাচার্য ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন তিনি।

এর আগে বেলা ১২টার দিকে ক্যাম্পাসে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা হয়। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, একদল তরুণ আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মারধর করছে। অনেক নারী কর্মীদের ধরে নিয়ে চড় লাথি মারতে মারতে নিয়ে যেতে দেখা যায়। আন্দোলনকারীরা এই হামলার জন্য উপাচার্যপন্থী শিক্ষক ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের দায়ী করেন। হামলায় একজন শিক্ষককে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এতে শিক্ষার্থীদেরও কয়েকজনকে দেখা আহত হয়ে পড়ে থাকতে। হামলাকারীরা ভিসি ফারজানা ইসলামের পক্ষ হয়ে উপাচার্যপন্থি শিক্ষকদের প্ররোচনায় এই হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন আন্দোলনকারীরা।

এ প্রসঙ্গে উপাচার্যকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে জবাবে ফারজানা ইসলাম বলেন, আন্দোলনকারীদের ওপর কোনো হামলা হয়নি। তিনি বলেন, আন্দোলনকারীদের পেছনে ইন্ধন যোগাচ্ছে জামায়াত-শিবির। তারাই মূলত বিশ্ববিদ্যালয়কে অশান্ত করার চেষ্টা করছে।

উপাচার্য অভিযোগ করেন, গতকাল সারা রাত ধরে আন্দোলনের নামে তারা (আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থী) আমার বাসার সামনে বাদ্য বাজিয়ে উচ্চস্বরে স্লোগান দিয়ে আমাদের বিরক্ত করেছে- এটাও তো এক ধরনের হামলা।

তিনি বলেন, আমার বাসায় বৃদ্ধা আছেন, শিশু আছে- তাদেরকে হয়রানি করা হয়েছে। তার পরও আমরা তাদেরকে কিছুই বলিনি। আজ বেলা ১২টার দিকে যে হামলার কথা বলা হচ্ছে সেটি আসলে তারাই করেছে। তারাই আমাদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করেছে।

ফারজানা ইসলাম বলেন, তারা আমাদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর মারধর করে আহত করেছে। আমাদের মেয়েদেরও তারা ধাক্কা দিয়েছে এবং যে ভাষায় তারা গালিগালাজ করেছে- আমি মর্মাহত। গত আগস্ট থেকে তারা যে অভিযোগে আন্দোলন করছেন তা ভিত্তিহীন বলে উল্লেখ করেন জাবি উপাচার্য।