কলমাকান্দা শুনুই গ্রামের পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে ৬০ জন গ্রাহকের ৪,০০,০০০/- টাকা প্রতারক আলালের আত্মসাৎ

December 3, 2019 9:09 am

সৈয়দ সময়, নেত্রকোণা জেলা প্রতিনিধি:

নেত্রকোণা কলমাকান্দা উপজেলার পোগলা ইউনিয়নের শুনুই গ্রামের পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কথা বলে ৬০ জন গ্রাহকের কাছ থেকে ৪,০০,০০০/- টাকা আত্মসাৎ করেছে একই গ্রামের মৃত সুরুজ আলী ও আয়মনা আক্তারের ছেলে মো: আলাল উদ্দিন।জানা যায় ভোক্তভোগী ৬০ জন গ্রাহক ও এলাকাবাসীর পক্ষে ভন্ড প্রতারকের বিরুদ্ধে মো: সাদেক তালুকদার গত ০৯/১০/২০১৯ইং তারিখে কমলাকান্দা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে এক লিখিত অভিযোগ করেন। যার অনুলিপি নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক ও নেত্রকোণা জেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি জেনারেল ম্যানেজার বরাবরে প্রেরন করা হয়েছে।

ঘটনাটি বিগত প্রায় চার বছর আগে ঘটে। অদ্যাবধি পল্লী বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ না হওয়াতে এলাকাতে চরম উত্তেজনা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে। কারো কাছ থেকে ৫ হাজার কারো কাছ থেকে ৬ হাজার কারো কাছ থেকে ৭ হাজার টাকা নিয়ে ৬০ জন গ্রাহকের ৪,০০,০০০/- টাকা আত্মসাৎ করে। এরই মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মতে বিনামূল্যে বৈদ্যুতিক খুটি ও তার সংযোগ সমপন্ন হয়েছে। প্রতারক আলাল উদ্দিন আত্মসাৎকৃত চার লক্ষ টাকা ভোক্তভোগী গ্রাহকদের ফেরত না দিয়ে লাইনটি চালু করনের সকল মালামাল ও অফিসিয়াল কাগজপত্রাদি তার নিজের দখলে রাখিয়া প্রত্যেক গ্রাহককে আরো দুই হাজার করে টাকা দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। নইলে নিমার্ণকৃত লাইন উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া ও বিদ্যুৎতের আলো দেখতে দিবে না বলে হুমকি প্রদান করছে যার কারণে বাদ্য হয়ে ভোক্তভোগীরা এই অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। সরেজমিনে জানা যায় আলাল উদ্দিন নিজেকে কখনো পল্লী বিদ্যুতের ঠিকাদার, কখনো পল্লী বিদ্যুতের নিজস্ব লোক আছে বলে পরিচয় দেয়। অভিযোগ কারী সাদেক তালুকদার বলেন, প্রতারক আলাল উদ্দিন প্রতারনা করাই তার কাজ। সে একজন সনদপত্রহীন পশু চিকিৎসক বলে পরিচয় দেন। তার ভুল চিকিৎসায় কয়েকবছর আগে এলাকার কয়েকটি গরু মারা যায়। গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিবে বলে নানা তালবাহানা করছে। শুনুই গ্রামের মোমেন মিয়া, কামাল মিয়া, আয়শা আক্তারসহ সকল ভোক্তভোগী ও এলাকাবাসী তাদের আত্মসাৎকৃত টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য যথাযথ কর্তৃক পক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন। এই ঘটনাটি কলমাকান্দা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: আব্দুল খালেক ও কলমাকান্দার এজিএম আনিছুর রহমান অবগত আছেন। এ ব্যাপারে আলাল উদ্দিনের সাথে একাধিক বার যোগাযোগ চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার বাড়ির লোকজন ও আশেপাশের লোকজন এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। কলমাকান্দা উপজেলার পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির জোনাল ইঞ্জিনিয়ার লুৎফর রহমানের কাছে জানতে চাইলে এর সত্যতা স্বীকার করেন এবং তদন্ত রিপোর্ট যথাযথ কর্তৃক পক্ষের নিকট পেশ করবেন।

Please follow and like us: