খালেদার জিয়ার আইনজীবীদের আদালতে হট্টগোল

ডিসেম্বর ৫, ২০১৯ ১:০৯ দুপুর

নিউজ ডেক্স:

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন না হওয়ায় আদালতে হট্টগোল করেছেন খালেদার আইনজীবীরা। বিএনপি প্রধানের জামিন না হওয়া পর্যন্ত প্রধান বিচারপতির এসলাসে অবস্থানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা।

বৃহস্পতিবার সকালে খালেদার জামিন শুনানির পেছানোর তারিখ ঘোষণার করার পরই হট্টগোল করতে থাকেন বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের সঙ্গে তাদের বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। বিএনপির আইনজীবীদের নজিরবিহীন হট্টগোলের ঘটনায় বিচারপতিরা কোনো আদেশ না দিয়ে এজলাস কক্ষ ত‌্যাগ করে চলে যান।

বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের দাবি, দলীয় চেয়ারপারসনের জামিন দিতে হবে। জামিন না দেওয়া পর্যন্ত তারা সেখানে অবস্থান করবেন। এতে করে আপিল বিভাগে প্রবেশের ক্ষেত্রে অন্যান্য আইনজীবীদের সমস্যা হচ্ছে।

জানতে চাইলে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা ফারুক হোসেন বলেন, ‘চেয়ারপারসনের জামিন দিতে হবে। অসুস্থ ও বয়সের বিবেচনায় ম্যাডামকে জামিন দিতে হবে। জামিন না দেওয়া পর্যন্ত আমাদের অবস্থান কর্মসূচি চলবে।’

বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারপতির বৃহত্তর আপিল বেঞ্চে খালেদার জামিন প্রশ্নে শুনানি শুরু হয়।

শুনানির শুরুতে অ‌্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আদালতকে জানান, খালেদা জিয়ার স্বাস্থ‌্য বিষয়ক রিপোর্ট তৈরি হয়নি। আরও কয়েকদিন সময় প্রয়োজন। এর বিরোধিতা করে খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা সঙ্কটাপূর্ণ। তার আগে জামিনের ব‌্যবস্থা করুন।’

এ অবস্থায় আপিল বিভাগ মেডিকে‌ল প্রতিবেদন দাখিলের জন‌্য এবং পরবর্তী শুনানির জন‌্য ১২ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেন।

তখন আদালতে অবস্থানরত বিএনপির আইনজীবীরা এ আদেশ মানি না বলে উচ্চস্বরে কথা বলতে থাকেন। এসময় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরও তাদের বক্তব‌্যের বিরোধিতা করলে দুই পক্ষে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়।

বিএনপির আইজনীবীদের হট্টগোলের একপর্যায়ে বিচারপতিরা কোনো লিখিত আদেশ না দিয়ে এজলাস কক্ষ ত‌্যাগ করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আপিল বিভাগের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। দুই পক্ষের আইনজীবীরাই এজলাস কক্ষে অবস্থান করছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ নভেম্বর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ‌্য বিষয়ক মেডিকেল বোর্ডের রিপোর্ট ৫ ডিসেম্বরের মধ‌্যে দাখিলের নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ‌্যালয়ের চিকিৎসকদের নিয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ডকে এ প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়।