কাগজের ব্যালটে ভোট দিতে ভোটাররা স্বাচ্ছন্দ বোধ করে-মির্জা ফখরুল

January 5, 2020 6:31 pm

নিউজ ডেক্সঃ

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)’ পদ্ধতির তুলনায় প্রচলিত কাগজের ব্যালটে ভোট দিতে ভোটাররা স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ইভিএম ব্যবহার নিশ্চয়ই ভোটারদের জন্য সহজ ও বোধগম্য কোনও পদ্ধতি নয়। আমাদের সহজসরল ভোটাররা ইভিএমের মতো জটিল প্রক্রিয়ায় অভ্যস্ত নয় এবং সেভাবে যথাযথ প্রশিক্ষণও পাইনি। এক কথায় ইভিএম ভোটারবান্ধব কোনও পদ্ধতি নয়। সেই তুলনায় প্রচলিত কাগজের ব্যালেট ব্যবহারেই তারা অধিকতর স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন।

আজ রোববার (৫ ডিসেম্বর) বিকালে রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিতর্কিত ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতির বিরুদ্ধে বিএনপির অবস্থান শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে দলটি।

মির্জা ফখরুল বলেন, কাগজের ব্যালেটে ভোটাররা তাদের ইচ্ছেমতো মার্কায় সিল মেরে সন্তুষ্ট হতে পারে যে, যাকে ভোট দিতে চান তাকেই মূল্যবান ভোটটি দিতে পেরেছেন। ইভিএমে ভোটার অডিট ট্রেইল না থাকায় বুঝতেই পারবেন না তিনি যাকে ভোট দিতে চেয়েছেন ভোটটি তিনিই পেলেন কিনা। আর এখানেই যত শুভঙ্করের ফাঁকি।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, নির্বাচন হচ্ছে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাপনায় রাষ্ট্রের প্রতি জনগণের মালিকানা প্রতিষ্ঠার সর্বোৎকৃষ্ট পদ্ধতি। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব হচ্ছে রাষ্ট্রের মালিক জনগণের মালিকানা প্রতিষ্ঠায় বিশ্বাসযোগ্য, গ্রহণযোগ্য, স্বচ্ছ এবং সহজতর কর্মকৌশল ও পরিবেশে ভোটাধিকার নিশ্চিতকরণ।

মূলত জনগণের অধিকার নিশ্চিতের এই গুরু দায়িত্ব যথাযথ পালনেই নির্বাচন কমিশনকে সাংবিধানিক ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। জনগণ যাতে কমিশনের যে কোনও সিদ্ধান্তকে তাদের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থার জায়গা থেকে গ্রহণ করে। কিন্তু, আমরা অত্যন্ত সুস্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, বর্তমান দলবাজ নির্বাচন কমিশনের প্রতি এদেশের মানুষের ন্যূনতম আস্থা নেই। জনগণ ইভিএম পদ্ধতিতে তার ভোট প্রয়োগ করবে একতরফাভাবে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের কোনও নৈতিক অধিকার বর্তমান নির্বাচন কমিশনের নেই, যোগ করেন মির্জা ফখরুল।

Please follow and like us: