ধর্ষক গলা টিপে উঁচু করে ধরে পাশের ঝোপে নিয়ে যায়!

জানুয়ারি ৭, ২০২০ ১১:০৪ দুপুর

নিউজ ডেক্সঃ

ধর্ষণের শিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী পুলিশকে জানিয়েছেন, ধর্ষকের সামনে দুটি দাত ছিলো না। আজ মঙ্গলবার ঘটনাস্থল এলাকা থেকে সন্দেহভাজন কয়েকজনের ছবি তুলে তাকে তখন সে পুলিশকে এ তথ্য দেন। এছাড়া তার চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা আজ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) থাকা ওই ছাত্রীর স্বাস্থ্যের খোঁজ-খবর নিতে যান।

সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান ওসিসির সমন্বয়কারী ডা. বিলকিস বানু।

তিনি জানান, মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা ওই ছাত্রীর কাছে জানতে চান, কোনো সমস্যা আছে কিনা কিংবা কি সমস্যা এখন। তখন তিনি বলেন, আমার গলায়, বুকে ও পেটে ব্যথা রয়েছে। ছাত্রীটি বলেন, ধর্ষক হঠাৎ এসে আমার গলা টিপে উঁচু করে ধরে পাশের ঝোপঝাড়ে নিয়ে যায়। তারপর পেটে লাথি ও বুকে ঘুষি মেরে ফেলে দেয়। ধর্ষক একপর্যায়ে আমার নাম জানার চেষ্টা করে।

ডা. বিলকিস বানু জানান, চিকিৎসক বোর্ডের সিদ্ধান্তক্রমে ছাত্রীর সব পরীক্ষা শেষ হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেয়েছি। সে রিপোর্ট অনুযায়ী বোর্ডের চিকিৎসকরা চিকিৎসা চালাচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, আজও মেয়েটির সঙ্গে পুলিশের অনেক কর্মকর্তা তদন্ত কাজের জন্য কথা বলেছেন। তারা আরও কিছু জানার চেষ্টা করছেন। পুলিশ সদস্যরা বেশ কিছু ছবিও তুলে এনে মেয়েটিকে দেখিয়েছেন। সেসব ছবি দেখে মেয়েটি তাদের জানিয়েছেন, ধর্ষকের সামনের দুটি দাঁত ছিলো না।