লকডাউন দিয়ে ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়-বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

March 26, 2020 7:42 pm

নিউজ ডেক্সঃ

বিশ্বজুড়ে করোনায় প্রাণহানি ২১ হাজার ছাড়িয়েছে। রোগীদের ভিড় সামলাতে রীতিমত হিমশিম অবস্থা, স্পেন-ইতালির হাসপাতালগুলোতে। যুক্তরাষ্ট্রে সাড়ে ৯শ মানুষের প্রাণহানি আর ৭০ হাজার মানুষ আক্রান্তের পর, ভাইরাস পরীক্ষায় অপ্রতুলতার অভিযোগ উঠেছে। ভাইরাস মোকাবিলায় ২ লাখ কোটি ডলারের বিশেষ সহায়তা প্যাকেজ পাশ করেছে, মার্কিন সিনেট। ভারতসহ বিভিন্ন দেশে চলছে লকডাউন। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, শুধু লকডাউন দিয়ে ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে না।

মাদ্রিদের সেভেরো ওচোয়া হাসপাতাল। ৮০ বেডের হাসপাতাল হলেও, কোভিড-নাইনটিন আক্রান্ত ৩শরও বেশি রোগী ভর্তি এখানে। প্রতিদিনই আক্রান্ত বেড়ে চলায় তিল ধারণের ঠাঁই নেই স্পেনের অনেক হাসপাতালে। প্রাণহানিতে চীনকেও ছাড়িয়ে গেছে দেশটি।

সরকার বলছে ৩ লাখ টেস্টিং কীট আছে। অথচ পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য আমাদের কাছে পর্যাপ্ত কীট নেই। সবাই নিজ পরিবার নিয়ে আতঙ্কিত। যখন কারো স্বজন আক্রান্ত হচ্ছেন, পরিবারের সদস্যরা তাকে এড়িয়ে চলছেন।

অসুস্থদের সারিয়ে তুলতে প্রাণন্তকর চেষ্টা চলছে ইতালির হাসপাতালগুলোতে। তৈরি হচ্ছে নতুন নতুন আইসিইউ ইউনিট। ভাইরাসে সব বয়সী মানুষই আক্রান্ত হচ্ছেন। এটা খুবই আগ্রাসী, তাই সবাইকে খু্ব সচেতন থাকতে হচ্ছে। এটা একটা ভুল ধারণা যে এতে কেবল বয়স্করা আক্রান্ত হবেন।

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে প্রথম একজনের প্রাণ গেছে। ২১ দিনের লকডাউন শুরুর দিন নিয়ম না মেনে ঘরের বাইরে বের হওয়ায় ভারতের বিভিন্ন স্থানে সাজা ভোগ করতে হয় অনেককে। ২শরও বেশি এফআইআর দায়ের হয়েছে ভারতজুড়ে। দিল্লির কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসকের করোনা ধরা পড়েছে। এ খবরে তার কাছে চিকিৎসা নেয়া ৮শ রোগীকে পাঠানো হয়েছে কোয়ারেন্টিনে।

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনেই রেকর্ড ১০ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছে করোনায়। কেবল নিউইয়র্কে ২ শতাধিক মানুষের প্রাণ গেছে করোনায় শহরে শহরে ভাইরাস পরীক্ষা এমন দীর্ঘ সারি। ভাইরাস মোকাবেলায় ২ ট্রিলিয়ন ডলারের বিশেষ সহায়তা প্যাকেজ পাশ করেছে মার্কিন সিনেট। কোভিড-নাইনটিনের পরীক্ষার অপ্রতুলতার অভিযোগ উঠেছে দেশটিতে।

এদিকে কেবল লকডাউন দিয়ে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হবে না- সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কেবল জনগনের চলাচল বন্ধ করে এই প্রাদুর্ভাব ঠেকানো যাবে না। বৈশ্বিক এ মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দরকার রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি। আমার বিশ্বাস, নেতাদের প্রতিশ্রুতি ও দৃঢ় নেতৃত্বই এ অবস্থার পরিবর্তন আনতে পারবে।

মারাত্মক ছোঁয়াচে করোনায় লন্ডনের হুমারটন হাসপাতালে মারা গেছেন সৈয়দ আশরাফ চৌধুরী নামে আরেক বাংলাদেশি ব্রিটিশ। বাড়ি সিলেটের কদম রসুলে। এর আগে মঙ্গলবার প্রাণ হারান জমসেদ আলী ও খছরু মিয়া।

Please follow and like us: