১৫টি পরিবারের বাসা ভাড়া মওফুক করলেন নারায়নগঞ্জের মানবাধিকার কর্মী ফেরদৌসি

March 29, 2020 7:20 pm

খোকন প্রধানঃ

১৫টি পরিবারের বাসা ভাড়া মওফুক করে দিলেন নাঃগঞ্জের মানবাধিকার কর্মী ফেরদৌসি আক্তার রেহেনা, পাশাপাশি এ সকল পরিবারের সদস্য ও এলাকার দুস্হ অসহায় অনেকের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেন তিনি।

সারা বিশ্বে যখন করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। নক ডাউন করা হয়েছে অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশের সব অঞ্চল তখন কর্মী হীন হয়ে পড়েছে অসহায়। দিন মজুর সহ নিম্ন আয়ের সাধারন মানুষ ঠিক তেমনি এক সময় এসকল মানুষের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছেন নাঃগঞ্জের সদর উপজেলার ফতুল্লার সস্তাপুর এলাকার স্হায়ী বাসিন্দা, মানবাধিকার কর্মী ফেরদৌসি আক্তার রেহেনা।

একজন সদালাপী, ধর্মী ভীরু, মানবাধিকার কর্মী হিসাবে ফতুল্লায় সু পরিচিত ফেরদৌসি আক্তার রেহেনা তার মালিকানাধীন দুটি ভাড়া বাসায় ১৫ টি পরিবারের চলতি মাসের ঘর ভাড়া মওফুক করেন দেন পাশাপাশি তিনি ১৬০জন অসহায় মানুষের মাঝে ৫ কেজি চাউল, ১ কেজি ডাইল, ১ কেজি আলু, হাফ লিটার তৈল এবং ১ টি করে ডেটল সাবান বিতরন করেন এবং সকল কে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন মূলক পরামর্শ প্রদান করেন। এ বিষয়ে মানবাধিকার কর্মী রেহেনা বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতি দিন ই মানুষ মারা যাচ্ছে এর ভয়াবহতা দিনে দিনে ছড়িয়ে যাচ্ছে সারা বিশ্বে যে কারনে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো আমাদের দেশেও এ ভাইরাস থেকে মানুষ কে রক্ষা করতে সরকার বিভিন্ন বিধি নিষেধ আরোপ করায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে দেশের মানুষ, এ সময়ে সরকার তার অসহায়, দিন মজুর সহ নিম্ন আয়ের মানুষ কে সহযোগিতা দিয়ে আসছে যা তুলনায় অনেক টা ই সীমিত এ কারনেই একজন মানুষ হিসাবে আমি আমার সাধ্য অনুযায়ী মানুষের পাশে দাড়াঁতে চেষ্টা করেছি মাত্র, সহযোগিতা করেছি আমার ব্যক্তিগত সাধ্য অনুযায়ী, এসময় ফেরদৌসি আক্তার রেহেনা বলেন আমি কোনো জন প্রতিনিধি নই কিন্বা কোনো রাজনৈতিক বিদ ও নই, আমার আহ্বান দেশের এই পরিস্থিতিতে নাঃগঞ্জের যে সকল বিওশালী, রাজনৈতিক ব্যক্তি, জন প্রতিনিধি সহ আর্থিক ভাবে যারা সচ্ছল রয়েছেন আপনারা সকলে সমাজের অসহায়, কর্মহীন মানুষের পাশে দাড়াঁন, তাদের সহযোগিতা করুন সাধ্য মতো ।

তিনি বলেন করোনা ভাইরাসের শুরু থেকেই আমি ব্যক্তিগত ভাবে অসহায় মানুষের পাশে দাড়িঁয়েছি, শুরুতে আমি রান্না করে খাবার বিতরন করেছি এলাকার অসহায় মানুষের মাঝে, এরপরে লক ডাউন হওয়ার পরে সকল কে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন হতে এবং সরকারী বিধি -নিষেধ মানতে পরামর্শ দিয়েছি আমার দুটি বাড়ীতে ভাড়া থাকা ১৫টি পরিবারের চলতি মাসের ভাড়া মওফুক করে দিয়েছি এবং মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান, খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেছি। রেহেনা আরো বলেন আমার জীবনের শেষ মূর্হুত পর্যন্ত আমি আছি মানুষের সেবায়, সাধ্য অনুযায়ী মানুষের সহযোগিতা করে যাচ্ছি আগামীতে যাবো।

Please follow and like us: