সাহায্য যখন ক্যামেরাবন্দী খেটে খাওয়া মানুষ তখন দিশেহারা

March 30, 2020 7:03 pm

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

মানুষ আর ঘরবন্দী নেই। বাজারে মোটামুটি ভালো ভীড়, রাস্তায় রয়েছে মানুষের ব্যাপক আনাগোনা। বিশেষ করে গরীব খেটে খাওয়া মানুষগুলো ছুটে বেড়াচ্ছে।

ত্রাণ বা দান সবই এখন ক্যামেরাবন্দী। যারা স্বল্প আকারে বিতরণ করছেন তাও আবার নিজের বাসা/বাড়ীর আশেপাশের মানুষকে দিয়ে ছবি তুলেই ক্ষান্ত। টিসিবির দেখা মিলতে হলে পত্যেক মানুষকে যেতে হবে নির্দিষ্ট পয়েন্টে।

ঢাকা মহানগর উত্তরের খিলক্ষেত এলাকায় খাবারের জন্য ছুটছে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষগুলো। খিলক্ষেত বটতলা এলাকায় এক বৃদ্ধা আক্ষেপ করে বলেন এদিক গেলে ওদিক শুনি ত্রাণ দিবে কিন্তু কোন ত্রাণের খবর নাই। টিভিতে তো দেখি সাহায্যের অভাব নাই কিন্তু আমরা তো পাচ্ছি না।

এক রিক্সাওয়ালাকে বাসার বাহিরে থাকা প্রসংগে জিজ্ঞাসা করলে জানান, সবাই তো প্যাকেট দিয়ে ছবি উঠানোর ধান্দায় থাকে। ২০-৩০ জনকে ছবি তুলে চলে যায়। আমরা বাকীরা না পেয়ে হতাশ হয়ে বাসায় ফিরে যাই।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, খিলক্ষেত এলাকায় তেমন কোন ত্রাণ বা সাহায্য কেউ পাচ্ছে না। স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতারা ব্যক্তি উদ্যোগে যৎসামান্য সাহায্য দিচ্ছে তাদের নিজের বাড়ীর আশপাশের এলাকায়।

গত ২৬ মার্চ থেকে মানুষ হোম কোয়ারান্টাইনে রয়েছে। দু একদিন রাস্তায় মানুষ পরিলক্ষিত না হলেও গতকাল রবিবার (২৯ মার্চ) থেকে রাস্তায় মানুষের উপস্থিতি দেখা যাচ্ছে। সরকারী সাহায্যগুলো সঠিকভাবে পৌঁছে দিলে মানুষগুলো রাস্তায় অনেকটা কম বাহির হতো বলে অনেকের ধারনা।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের চেয়ে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি বাংলাদেশে অনেকটা স্বাভাবিক রয়েছে। এই পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে হলে গরীব দুখী খেটে খাওয়া মানুষের দুমুঠো খাবারের ব্যবস্থা করতে হবে। এগিয়ে আসতে হবে সরকার থেকে শুরু করে ব্যক্তি পর্যায়ের প্রতিষ্ঠিত মানুষের। তাহলে এই খেটে খাওয়া মানুষগুলো জীবিকার সন্ধানে ঘরের বাহিরে আসবে না।

Please follow and like us: