নাড়ায়ণগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় পৃথক এলাকায় শরীফ ও অবিনাস নামক দুই ব্যক্তি নিহত

April 1, 2020 5:13 pm

মোঃ খোকন প্রধান, স্টাফ রিপোর্টারঃ

নাড়ায়ণগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় পৃথক এলাকায় শরীফ হোসেন (৩০)ও অবিনাস (৫০)নামক দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

বুধবার ১ এপ্রিল সকাল ১০টায় জেলার ফতু্ল্লা থানাধীন দেওভোগ এলাকায় শরীফ এবং একই দিন ভোর সোয়া ৬টায় রুপগঞ্জে অবিনাশ সরকার কে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এঘটনায় এখনো পর্যন্ত পুলিশ হত্যা কারীদের গ্রেপ্তার করতে পারে নি, দুটি হত্যা কান্ডের ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুুতি চলছে।

হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের জন্য সাড়াঁশি অভিযান চলছে বলে দাবী পুলিশের। নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন দেওভোগ এলাকার স্হায়ী বাসিন্দা ও টিভি -ফ্রীজের ব্যবসায়ী শরীফ হোসেন বুধবার সকাল ১০ টার দিকে স্হানীয় আর্দশ নগর এলাকা দিয়ে যাওয়ার পথে দেখেন বেশ কয়েক জন যুবক একটি স্হানে জটলা বেধেঁ আড্ডা দিচ্ছে এসময় সে তাদের নিজ নিউ বাসায় যেতে বললে শুরু হয় তর্ক-বিতর্ক, এক সময় আড্ডারত সন্ত্রাসীদের সাথে তার তর্ক-বিতর্ক উওপ্ত হয়ে উঠলে সন্ত্রাসীরা শরীফের পেটে ছুরিকাঘাত করলে সে ঘটনা স্হলে মারা যায়। সু্ত্রে প্রকাশ যে সন্ত্রাসীদের সাথে শরীফের পূর্ব থেকে ই বিরোধ ছিলো, এদিন সকালে তারা শরীফ কে একা পেয়ে তার উপর হামলা করে এবং এক পর্যায়ে তাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে পালিয়ে যায়। স্হানীয়দের সুত্রে আরো জানা গেছে বেশ কিছু দিন ধরে থানার দেওভোগ আর্দশ নগর এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুটি গ্রুপের বিরোধ চলছিলো, এ নিয়ে বেশ কয়েক বার স্হানীয় বিচার শালিসীও হয়েছে, দুটি গ্রপের একটির নেতৃত্বে ছিলেন নিহত শরীফ আর অপর গ্রুপ হলো হত্যাকারী সন্ত্রাসীরা তবে উল্লেখিত দুটি গ্রুপ ই স্হানীয় আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত, নিহত শরীফ উক্ত এলাকার আলাল মাতবরের ছেলে বলে জানা গেছে।

ঘটনাস্হলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শুভ বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্হলে গিয়ে শরীফের মরদেহ উদ্ধার করে নাঃগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে, ঘটনার তদন্ত চলছে এবং হত্যা কারীদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এদিকে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আসলাম হোসেন জানায়, এলাকায় দুটি গ্রুপের দ্বন্দ্ব চলছিলো এর জেরে এ হত্যা কান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে অনুমান করা হচ্ছে তবে তদন্ত চলছে এবং হত্যা কারীদের গ্রেপ্তারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে জেলার রুপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের পোড়াবো এলাকায় নারিকেল গাছের গুড়িঁ আনতে গিয়ে অবিনাস নামে এক বৃদ্ধ ব্যক্তি কে কুপিঁয়ে হত্যা করে তার চাচাতো ভাইয়েরা এমনি অভিযোগ নিহতের পরিবারের। পুলিশ ও এলাকা বাসীর সুত্রে জানা গেছে, জেলার রুপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইলের পোড়াবো এলাকায় সকাল সোয়া ৬টার দিকে স্হানীয় মৃত প্রান কুমার সরকারের ছেলে অবিনাস সরকার তার বাড়ীর পাশে একটি কাটা নারিকেল গাছের গুড়িঁ আনতে গেলের্ সেখানে তার চাচাতো ভাই অর্জুন সরকার, দূর্জয় সরকার, স্বদেশ সরকার বাধাঁ দেন, এসময় অবিনাস তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলে এক পর্যায়ে তাদের সাথে কথাকাটা কাটি হয়ে, এসময় অবিনাসের পক্ষে তার ছেলে সন্তানেরা এগিয়ে আসলে শুরু হয় মারা মারি এবং এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষের লোকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে অবিনাস কে কুপিঁয়ে মারাত্বক জখম করলে হাসপাতালে যাওয়ার পথে সে মারা যায়। সুত্রে আরো জানা গেছে যে, জমি জমা নিয়ে দীর্ঘ দিন বিরোধ চলছিলো অবিনাস সরকারের সাথে তার চাচাতো ভাই অর্জুন সরকার গংদের সাথে মামলা মোকাদ্দমা চলছিলো এবং বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হতো। রুপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদূল হাসান জানায়, এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানায়, এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুুতি চলছে এবংন জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে।

Please follow and like us: