দোষ খুঁজে বেড়ানো থেকে বিরত থাকুন

April 22, 2020 8:43 pm

আসাদুল্লাহ মাসুম,

একজন মানুষ কি বাইরে থেকে দেখে যা মনে হয় তার চেয়ে বেশি কিছু জানার জন্য বা সন্দেহের বশবর্তী হয়ে সাধারন কৌতুহলের কারনে কারো দোষ খুঁজে বেড়ানো যাবেনা। অন্যদের যে বিষয় সমূহ সর্বসাধারণের জানার বাইরে আছে তা খোঁজাখুঁজি করা এবং কার কি দোষ আছে ও কার কি দুর্বলতা গোপন আছে আড়াল থেকে তা জানার চেষ্টা করা কোনো মুমিনের কাজ নয়।

মানুষের ব্যক্তিগত চিঠি পড়া, দুজনের কথাবার্তা কান পেতে শোনা প্রতিবেশীর ঘরে উঁকি দেওয়া বিভিন্নভাবেই অন্যদের পারিবারিক জীবন বা তাদের ব্যক্তিগত বিষয়াদি খোঁজ করে বেড়ানো একটি অতি বড় বিশৃংখলা বা অরাজকতা তৈরীর কাজ করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য গোপন অনুসন্ধান চালানো যাবে। অথবা কোন হত্যারহস্য বা এ জাতীয় কোন অপরাধের তদন্তের স্বার্থে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের গোপন অনুসন্ধান এর আওতায় পড়বে না।

যারা বিভিন্ন অপরাধ করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। কোন ব্যক্তি বিশেষের ক্ষতি থেকে সাধারণ মানুষ দেশ ও জাতিকে সাবধান করার জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর খারাপ কাজ সম্পর্কে বিবরণ দেওয়া যারা পাপ কাজের প্রসার ঘটাচ্ছে তাদের অপকীর্তি মানুষের সম্মুখে তুলে ধরতে হবে। কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর চরিত্র ও কাজে কিংবা তার দৈনন্দিন আচার-আচরণ ও চালচলনে এমন সুস্পষ্ট লংঘন ফুটে উঠে যে তাদের সম্পর্কে ভালো ধারণা করার কোন সুযোগ থাকেনা। বরং খারাপ ধারণা পোষণ এর পক্ষে একাধিক যুক্তি ও প্রমাণ থাকে।

সরলতা দেখিয়ে মানুষের প্রতি বাধ্যতামূলকভাবে ভালো ধারণা পোষণ করতে হবে। খারাপ কে খারাপ মনে করা বৈধ এর সীমা হলো তার সম্ভাব্য দুষ্কৃতী থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সর্তকতা অবলম্বন করা। ধারণার ভিত্তিতে আরও অগ্রসর হয়ে কোন পদক্ষেপ নেওয়া যাবে না। ধারণার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অবশ্যই যাচাই করে নিতে হবে ধারণাটি সঠিক কিনা। আসলেই এমন ধারণার যুক্তিকতা আছে কিনা।ধারণার ক্ষেত্রে তাদেরকে এতোটুকু সাবধানতা অবশ্যই অবলম্বন করতে হবে। সংশোধনের উদ্দেশ্যে এমন ব্যক্তির কাছে কোন ব্যক্তির খারাপ কাজ বা দিকের কথা বলা যে তার প্রতিকার করতে পারবে বা তাকে সংশোধন করে দেবে।

Please follow and like us: