পবিত্র লাইলাতুল ক্বদরের গুরুত্ব ও ফযিলত

May 20, 2020 11:07 am

ধর্মীয় ডেক্সঃ

মহিমান্বিত শবে কদরের গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে পবিত্র আল কোরআনে মহান আল্লাহ তায়ালা এরশাদ করেন :

إِنَّا أَنْزَلْنَاهُ فِي لَيْلَةِ الْقَدْرِ ﴿١﴾ وَمَا أَدْرَاكَ مَا لَيْلَةُ الْقَدْرِ ﴿٢﴾ لَيْلَةُ الْقَدْرِ خَيْرٌ مِنْ أَلْفِ شَهْرٍ ﴿٣﴾ تَنَزَّلُ الْمَلَائِكَةُ وَالرُّوحُ فِيهَا بِإِذْنِ رَبِّهِمْ مِنْ كُلِّ أَمْرٍ ﴿٤﴾ سَلَامٌ هِيَ حَتَّى مَطْلَعِ الْفَجْرِ ﴿٥﴾

অর্থ্যাৎ -ঃ নিশ্চয়ই আমি তা (কোরআন) অবতীর্ণ করেছি কদরের রাতে। আর কদরের রাত সম্বন্ধে তুমি কি জানো? কদরের রাত হাজার মাস অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ। সে রাতে ফেরেশতারা ও রুহ অবতীর্ণ হয় প্রত্যেক কাজে তাদের প্রতিপালকের অনুমতিক্রমে। শান্তিই শান্তি, বিরাজ করে উষার আবির্ভাব পর্যন্ত। (সূরা আল-কদর, আয়াত ১-৫)

লাইলাতুল কদর‎‎ এর অর্থ অতিশয় সম্মানিত ও মহিমান্বিত রাত বা পবিত্র রজনী। আরবি ভাষায় ‘লাইলাতুল’ অর্থ হলো রাত্রি বা রজনী এবং ‘কদর’ শব্দের অর্থ সম্মান, মর্যাদা, মহাসম্মান। এ ছাড়া এর অন্য অর্থ হচ্ছে; ভাগ্য, পরিমাণ ও তাকদির নির্ধারণ করা। ইসলাম ধর্ম অনুসারে, এ রাতে মহানবী (সাঃ) এর সম্মান বৃদ্ধি করা হয় এবং মানবজাতির ভাগ্য পুনর্নির্ধারণ করা হয়। শবে কদর কোরআন নাজিলের রাত। সুদীর্ঘ ১৫ বছর হেরা পর্বতের গুহায় মোরাকাবা করে মহান রাব্বুল আলামিনের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে এ রাতেই প্রথম মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের পক্ষ থেকে বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মাদ (সা.)-এর প্রতি মহাগ্রন্থ আল কোরআন অবতীর্ণ হয়।মহান আল্লাহ তায়ালা উম্মতে মোহাম্মদীকে অধিক ভালবেসে লায়লাতুল কদরকে হাজার মাসের চেয়েও শ্রেষ্ঠ করেছেন, যেন আমরা অল্প হায়াতে জিন্দেগীতেও অন্যান্য নবি রাসূল গনের উম্মতের তুলনায় অধিক নেক হাসিল করতে পারি।

আমরা যেন সহজে কদর লাভ করতে পারি এজন্য রাসুলে আকরাম (সা.) বলেছেন: ‘তোমরা রমজানের শেষ দশকের বিজোড় রাতগুলোতে শবে কদরকে সন্ধান করো। (মুসলিম)। এ রাতগুলো হলো ২১, ২৩, ২৫, ২৭ ও ২৯। মনে রাখতে হবে, আরবিতে দিনের আগে রাত গণনা করা হয়।

রমজানের শেষ দশকের বেজোড় রাতে কদর লাভের জন্য মহান মালিকের দরবারে তওবা এস্তাগফার ও বেশি বেশি নফল ইবাদত করে হাজার মাসের শ্রেষ্ঠ নেয়ামত লাভের মাধ্যমে আমরা যেন মহান প্রভুর সান্নিধ্য ও নৈকট্য লাভ করতে পারি।

Please follow and like us: