করোনার মধ্যেই শ্রীপুরে মারামারি, হাসপাতালের বেড খালি না থাকায় মেঝেতে রোগী

May 29, 2020 7:07 pm

মুজাহিদ শেখ,শ্রীপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি

বিশ্বব্যাপী চলছে করোনাভাইরাস জনিত মহামারি । মানুষের মাঝে চারি দিকে আতংক । এই ভাইরাস থেকে মুক্ত নয় বাংলাদেশ। দেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন । এরই মধ্যে মাগুরার শ্রীপুরে তুচ্ছ ঘটনা ও জমাজমি নিয়ে মারপিটের আঘাতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলা স¦াস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন ২৪ জন । স¦াস্থ্য কমপ্লেক্সের বেড খালি না থাকায় মেঝেতে রয়েছেন অনেক রোগী । গতকাল সন্ধ্যায় হাতের আঙ্গুলে কোপ নিয়ে ভর্তি হয়েছেন আমতৈল গ্রামের মিরাজ মৃধা।

সরেজমিনে শুক্রবার উপজেলা স¦াস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, দ্বিতীয় তলার পুরুষ ওয়ার্ডে ২৭ জন রোগী ভর্তি ছিলেন । এর মধ্যে ৭ জন রোগীকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে । ভর্তি আছেন ২৪ জন রোগী এর মধ্যে ২০ জন মারামারি ও ৪ জন বিভিন্ন রোগে ভর্তি । মারপিটের আঘাতে আহত হয়ে ভর্তি আছেন দারিয়াপুর গ্রামের মোঃ মান্নান আলী শেখ (৬৫), রাজাপুর গ্রামের মোঃ ইদ্রিস শেখ(৬০), রাসেল শেখ(২২), মোঃ মোস্তফা শেখ(৫৮), চরগোয়ালদা গ্রামের সুজন কুমার মন্ডল(২৮),চন্দ্র কান্তি মন্ডল(৬০), মালাইনগর গ্রামের নকুল চন্দ্র বিশ্বাস(৬০),হরশিত কুমার(৪৫), আমতৈল গ্রামের মিরাজ মৃধাসহ অনেকে । দারিয়াপুর গ্রামের মোঃ মান্নান আলী শেখ জানান, আপন চাচাতো ভাই মনিরুল শেখ, পিকুল শেখ ও তার ছেলে জনি পারিবারিক জমাজমি নিয়ে বিরোধে আমাদের ৪ ভাইকে মারপিট করে । আমার ছোট ভাই মোঃ ফরিদ শেখ (৪০) কে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে মাথায়,হাতে ,পায়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে । সে বর্তমানে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি আছে । তার অবস্থা আশংকাজনক । আমতৈল গ্রামের মিরাজ মৃধা জানান, আমি সন্ধ্যার একটু আগে মোবাইলে বাড়ি ভাড়ার বিষয়ে আমার স্ত্রীর সাথে কথা বলছিলাম এমন সময় বাড়ির মালিকের শশুর মোঃ মোক্তার বিশ্বাস এসে আমার সাথে তর্কে লিপ্ত হয় । এরই এক পর্যায়ে তার হাতে থাকা ধাড়ালো কাঁচি দিয়ে আমার হাতে কোপ দেয় । তার কাঁচির কোপে আমার হাতের একটি আঙ্গুল কেটে যায় । মারামারির প্রতিটি ঘটনার বিষয়ে থানা পুলিশকে জনানো হয়েছে বলে তারা সকলেই জানান।

উপজেলা স¦াস্থ্য কমপ্লেক্সে ডিউটিরত নার্স সন্ধ্যা রানী ও রিজিয়া খাতুন জানান, ঈদের দিন দুপুরের পর থেকেই মারামারির রোগী আসছে । আজ শুক্রবার পর্যন্ত ২৭ জন রোগী ভর্তি ছিলো । এর মধ্যে ৭ জন রোগীকে আজ রিলিজ দেওয়া হয়েছে । এখানে পুরুষ ওয়ার্ডে ১৬ টি বেড আছে । কিন্তু রোগী ভর্তি আছে বেশি সে জন্য মেঝেতে রোগীদের বিছানা দেওয়া হয়েছে।

Please follow and like us: