শিশুর রোগ প্রতিরোধে যেসব খাবার খাওয়াবেন

June 1, 2020 11:03 pm

লাইফস্টাইল ডেক্সঃ

মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয় এখন নিত্যসঙ্গী। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকায় করোনার অন্যতম লক্ষ্য শিশুরা। কাজেই বাড়ির কম বয়সীদের প্রতি এখন কড়া নজর রাখতে হবে, নিতে হবে বাড়তি যত্ন।

লকডাউনের কারণে শিশুদের সারাদিন বাড়িতে থাকতে হচ্ছে। এ সময়ে তাদের করোনা রোধে কার্যকর পরিচ্ছন্নতার স্বাস্থ্যবিধি, যেমন- বার বার হাত ধোয়া, নিয়মিত দাঁত মাজা, পরিষ্কার- পরিচ্ছন্ন থাকার ব্যাপারে সচেতন করতে হবে। পাশাপাশি তারা যেন এগুলো চর্চা করে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। তাদের শরীরস্বাস্থ্যের প্রতি নজর রাখতে হবে। তাদের বয়স অনুযায়ী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতায় যেন ঘাটতি না থাকে, সে বিষয়ে বিশেষভাবে যত্নশীল হতে হবে।

জীবনযাপন, খাদ্যাভ্যাসের সামান্য বদল করে শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান সম্ভব। এর জন্য কিছু অভ্যাসের বদল জরুরি। শুধু খাদ্যতালিকা লক্ষ রেখে প্রয়োজনীয় পুষ্টির জোগান দিলে শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে না। শিশুরা রোদে খেললে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি থাকে না। ভিটামিন ডি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। কিন্তু এখন বাইরে রোদে গিয়ে খেলার বা বেড়ানোর কোন সুযোগ নেই। কাজেই শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে কিছু কিছু বিষয়ে সচেতন থাকা জরুরি।

শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে যা করতে হবে-
পর্যাপ্ত ঘুম নিশ্চিত করুন: রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরিতে পর্যাপ্ত সময় ঘুম কার্যকর। ঘুম কম হলে মানসিক চাপ তৈরি হয়। এতে মস্তিষ্কে অক্সিজেনের সরবরাহ কমে যায়। শিশুদের অন্তত ১০ থেকে ১৪ ঘণ্টা ঘুমানো জরুরি। এক্ষেত্রে বাবা-মাকে অনেক বেশি সতর্ক হতে হবে। শিশুরা যাতে দীর্ঘ সময় ধরে কার্টুন না দেখে, কম্পিউটার গেম না খেলে বা দীর্ঘ সময় স্মার্টফোন নিয়ে খেলা না করে, সে দিকে নজর রাখতে হবে। এই ডিভাইসগুলো শিশুদের ঘুম কমিয়ে আনে। তাদের ঘুমানোর জন্য নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করে দেয়ার পাশাপাশি সেগুলো মেনে চলার বিষয়েও ব্যবস্থা নিতে হবে।

অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক দেবেন না: শিশুদের সামান্য অসুখেই অভিভাবকেরা চিন্তিত হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নেন। এক শ্রেণির চিকিৎসক কোন না কোন অ্যান্টিবায়োটিক লিখে দেন। এতে তারাতারি রোগ ভালো হয় ঠিকই, কিন্তু ভিতরে ভিতরে শিশুকে অনেক বেশি দুর্বল করে তোলে। বাবা-মা অনেক সময় সাধারণ রোগব্যাধিতে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই পরিচিত কিছু অ্যান্টিবায়োটিক শিশুকে খেতে দেন। এভাবে অত্যধিক অ্যান্টিবায়োটিক সেবনে শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পায়। তাই শিশুকে যতটা সম্ভব অ্যান্টিবায়োটিক কম খাওয়ান।

বাড়িতে তৈরি খাবার খাওয়ান: বাড়িতে বানানো খাবার খাওয়ানোর অভ্যাস করান শিশুকে। জাঙ্ক ফুড থেকে দূরে রাখুন। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য প্রচুর পরিমাণ তাজা সবজি ও ফলমূল খাওয়ান। শিশুর বায়না মেটাতে অস্বাস্থ্যকর খাবার না দেয়াই ভালো। ঘন ঘন জাঙ্ক ফুড শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে কমিয়ে দেয়। বরং বাড়িতেই বানিয়ে দিন শিশুর উপযোগী মুখরোচক খাবার।

সূত্র: আনন্দবাজার

Please follow and like us: