প্রবাসীরা দেশের অর্থনৈতিক মূল চালিকাশক্তি,তাদের এত অবদানের পরও কেন অবহেলিত!

June 2, 2020 11:11 pm

প্রবাসীদের পাঠানো অর্থ বাংলাদেশের অর্থনীতিকে সচল রাখতে নিরন্তর অবদান রেখে যাচ্ছে।গ্রামে কিংবা শহরে সব স্থানে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থে নির্মিত হচ্ছে অর্থনৈতিক অবকাঠামো।বাংলাদেশের গ্রামে বহুতল ভবন,গ্রামের বাজার গুলোতেই একেকটি মিনি শপিং মল,থানা বা জেলা শহরে নির্মিত সুরম্য অট্টালিকা প্রবাসীদের পাঠানো অর্থেই নির্মিত।বাংলাদেশে সৎ পথে থেকে সৎভাবে আয় করে সঞ্চয় করা অথবা সঞ্চয় থেকে সম্পদ সৃষ্টি করা খুব কষ্টকর।কিন্তু প্রবাসীদের কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে অর্জিত অর্থ তাই সম্ভব করছে যা স্বদেশে থেকে সম্ভব হচ্ছে না।

প্রবাসী আয়ের রয়েছে সুদূরপ্রসারী প্রভাব।প্রবাসী আয় নাগরিকের ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প গঠনে অপরিসীম সহায়তা করছে এই প্রবাসী আয়।এর ফলে দেশের ভেতরে বেকারদের কর্ম সংস্থান হচ্ছে।বেকার হাতগুলি কর্ম তৎপর হওয়ার ফলে উৎপাদনের গতি সচল হচ্ছে এবং দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হচ্ছে।প্রবাসীদের প্রতি বছর পাঠানো বিশ বিলিয়ন ডলার অর্থই অর্থনৈতিক মূল চালিকাশক্তি।আমি একজন প্রবাসী হয়ে সকল প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।
কিন্ত এই চালিকাশক্তির প্রবাসীরা বিশেষ করে লেবানন প্রবাসীরা কেন আজ এত অবহেলিত। লেবানন প্রবাসী দীর্ঘদিনের কর্মহারা হয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণ কারণে এদেশীয় নিয়মনীতি মেনে প্রায়ই গৃহবন্দী। আবাসস্থল (বাসা)ভাড়া, খেয়ে- নাখেয়ে অপেক্ষামান নিজ মাতৃভূমিতে ফিরতে।বৈরুতের দূতাবাসের প্রতিনিয়ত রিপোর্ট এবং বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রচারিত নিউজ বাংলাদেশ সরকার দেখেও নাদেখার অভিনয়। এক-এক সময় এক-এক উদাহরণ দিচ্ছে। লেবানন প্রবাসীদের কপালে কখন যে জুড়বে লাল-সবুজের পতাকায় স্বাধীন সার্বভৌমত্ব ৫৫,৫৫৪ বর্গকিলোমিটারের জন্মভূমি বাংলাদেশ।

ওয়াসীম আকরাম সাংবাদিক ও কলামিস্ট

Please follow and like us: