সাংসদ পাপলু সম্পর্কে সরকারের অবস্থান ‍তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী

July 8, 2020 3:13 pm

নিউজ ডেক্সঃ

মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেফতার হওয়া লক্ষ্মীপুর ২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম পাপলু সম্পর্কে সরকারের অবস্থান ‍তুলে ধরে সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সে (পাপুল) কুয়েতের নাগরিক কি না, সেটা কিন্ত কুয়েতের সাথে কথা বলছি, দেখবে। আর যদি এটা হয় তাহলে তার ওই সিট হয়তো খালি করে দিতে হবে। যেটা আইন আছে সেটাই হবে। তার বিরুদ্ধে এখানেও তদন্ত করছি।

বুধবার (০৮ জুলাই) স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ এ বিষয়ে সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে কথা তুললে সংসদ এ নেতা জবাব দেন।

রিজেন্ট হাসপাতাল নিয়ে সংসদে প্রশ্ন তোলার পর প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটা কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকেই ধরেছি। প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে সরকার উদ্যোগ নিয়েছে এবং অনিয়মগুলো খুঁজে বের করেছি। ইতোমধ্যে গ্রেফতারও করা হয়েছে। ওই হাসাপতালের এই তথ্য কিন্তু আগে কেউ দেয়নি, জানাতে পারেনি। অন্য কেউ জানায়নি।

তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকেই খুঁজে বের করেছি, ব্যবস্থা নিয়েছি। র‌্যাব গেছে সেখানে, সেখান থেকে খুঁজে বের করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

পাপুল সম্পর্কে তিনি বলেন, যে সংসদ সদস্যের কথা বলা হয়েছে সে কিন্তু স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য। সে কিন্তু নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য নমিনেশন চেয়েছিল আমি দেইনি। সে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য। নির্বাচনে ওই সিট জাতীয় পার্টিকে দিয়েছিলাম। জাতীয় পার্টির নোমান নমিনেশন পেয়েছিল সে নির্বাচন করেনি ওই লোক জিতে আসে।

সংসদ সদস্য পাপুল সম্পর্কে বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ সংবিধানের ৬৬ অনুচ্ছেদের ব্যাখা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সংসদে নির্বাচিত হইবার যোগ্যতা এবং অযোগ্যতা সম্পর্কে যে বিষয়টি বিবৃতিতে রয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে তিনি কোনো বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব অর্জন করেন কিংবা কোনো বিদেশি রাষ্টের আনুগত্য স্বীকার করেন তাহলে তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচন করার যোগ্য হবে না। পঞ্চদশ সংশোধনীতে আরো অধিকতর সংশোধন করা হয়েছিল। ২ (ক) দফার পরিবর্তে নিম্নরূপ ২ (ক) দফা প্রতিস্থাপিত হবে যথা ২ (ক) এই অনুচ্ছেদের ২ দফার (গ) উপদফাতে যা কিছুই থাকুক না কেন কোনো ব্যক্তি জন্মসূত্রে বাংলাদেশের নাগরিক হইয়া কোন বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব অর্জন করলে এবং পরবর্তীতে উক্ত ব্যক্তি দ্বৈত নাগরিকত্ব গ্রহণের ক্ষেত্রে বিদেশি নাগরিকত্ব ত্যাগ করিলে কিংবা অন্যক্ষেত্রে পুনরায় বাংলাদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করিলে এই অংশের উদ্দেশ্য সাধনকল্পে তিনি বিদেশি নাগরিকত্ব অর্জন করিয়েছেন বলে গণ্য হইবে না।

তিনি বলেন, পত্রপত্রিকার রেফারেন্স দিয়ে বলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেছেন সে (পাপুল) কুয়েতের নাগরিক হিসেবে সেখানে গ্রেফতার হয়েছে। আজকে যদি সত্যি কুয়েতের নাগরিকত্ব গ্রহণ করে থাকে তাহলে এই ব্যাপারে স্পিকার আপনাকে সুস্পষ্ট ব্যাখা দিতে হবে। কারণ পররাষ্ট্র মন্ত্রী তথ্য সংগ্রহ করেই বলেছেন। ইমিগ্রেশনে সে যে পাসপোর্ট ব্যবহার করে কুয়েতে গেছে, তা সরকারি পাসপোর্ট নয়। তাহলে নিঃসন্দেহে সে বিদেশি নাগরিক। পাপুল তথ্য গোপন করেছে নির্বাচনের সময়। আজকে সে এই অপকর্মের সাথে জড়িত। সংবিধান অনুযায়ী যে দায়িত্ব আপনার আশা করব এ ব্যাপারে সুস্পষ্ট ঘোষণা দেবেন।

Please follow and like us: