বাল্যবিয়ে বন্ধ: নেত্রকোনায় পালিয়ে গেল বর, দুই পক্ষকে জরিমানা

July 18, 2020 8:59 pm

সৈয়দ সময়, নেত্রকোনা

নেত্রকোনা সদর উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের ধাওয়াপাড়া গ্রামের দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে জের করে বিয়ে দিতে চাচ্ছিলেন মেয়েটির বাবা ও চাচা। সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইমরানুজ্জামান বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে বর পক্ষকে ১০ হাজার ও মেয়ের চাচাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং বিয়েটি বন্ধ করে দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার ধাওয়াপাড়া গ্রামে লক্ষীপুর আদর্শ হাইস্কুলের দশম শ্রেণির ১৬ বছরের এক কিশোরীর সাথে গত শুক্রবার বিকেলে বিয়ের আয়োজন চলছিল ময়মনসিংহের এক ছেলের সঙ্গে। বিয়ে বাড়িতে কেন্দুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি। বিয়েতে মেয়ে ও মেয়ের মার আপত্তি ছিল। কিন্তু মেয়ের বাবা ও তিন চাচা জোর করে বিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছিলেন। খবর পেয়ে নির্বাহী সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইমরানুজ্জামান পুলিশ নিয়ে বিয়ে বাড়িতে হাজির হন। ম্যাজিস্টেটের উপস্থিতি টের পেয়ে বর ও তার লোকজন পালিয়ে যায়। পরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর অধীনে পৃথক ২ টি বিবিধ মামলায় বরের ভগ্নিপতিকে ১০ হাজার এবং মেয়ের এক চাচাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নেত্রকোনা জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইমরানুজ্জামান বলেন, মেয়ে ও মেয়ের মার সাথে কথা বলে জানা গেছে তাদের ইচ্ছের বিরুদ্ধে বিয়ের আয়োজন চলছিল। তাই দুই পক্ষকে জরিমানা করা হয়েছে। মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেয়া হবে না বলে মেয়ের মার কাছ থেকে মুচলেকা নেয়া হয়েছে।

Please follow and like us: