জিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখা গেছে, ১লা আগস্ট ঈদ

July 22, 2020 9:03 pm

নিউজ ডেক্সঃ

বাংলাদেশের আকাশে আজ পবিত্র জিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখা গেছে এবং আগামী পহেলা আগষ্ট শনিবার পবিত্র ঈদুল আযহা পালিত হবে।

যারা জিলহজ্ব মাসের রোযা রাখবেন আজ সেহরী খেতে হবে, আজ সেহরীর শেষ সময় ৩টা ৫০ মিনিট। যারা পারেন কোরবানীর আগেরদিন পযর্ন্ত ৯টা সবগুলা রাখার চেষ্টা করবেন, না পারলে কোরবানীর আগের দুইটা রাখবেন ওগুলা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যাদের ক্বাজা রোযা আছে তারাও এই নফল রোযাগুলো রাখতে পারবেন, তবে ক্বাজাগুলো পরে আদায় করতে হবে।

◼যিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখার পর এখন আমাদের প্রথম দশ দিনের আমলসমূহ:

রাসুল (সঃ) বলেন: জিলহজ্ব মাসের প্রথম ১০ দিনে নেক আমল করার মতো অধিক প্রিয় আর কোনো আমল আল্লাহর কাছে নাই। [সহীহ বোখারী-৯৬৯]
.
১) যারা কোরবানী করবে নখ-চুল না কাটা, যারা করবেনা তারাও এটা পালন করা মুস্তাহাব। যিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখা যাবার পর হতে অর্থাৎ এখন হতে কোরবানির পশু জবাই না করা পযর্ন্ত নখ-চুল/লোম এসব কাটা যাবেনা।[ইবনে মাজাহ-৩১৪৯]

২) জিলহজ্ব মাসের প্রথম ০৯ দিন (আগামীকাল বৃহস্পতিবার হতে ৩১শে জুলাই শুক্রবার পযর্ন্ত) সিয়াম পালন করা। [তিরমিযী-৭৫৮]

৩) জিলহজ্ব মাসের ১হতে-১০ তারিখ (আজ রাত হতে কোরবানির রাত পযর্ন্ত) বেশি বেশি ইবাদত করা, বিশেষ করে রাতগুলোতে তাহাজ্জত পড়ে দোয়া করা। [বোখারী-৯২৬]

৪) বিশেষ করে আরাফার দিন অর্থাৎ ৯ই যিলহজ্ব (৩১শে জুলাই শুক্রবার) সিয়াম পালন করা।(এটার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব এসেছে হাদিসে, রাসুল [সঃ] বলেছেন- যে ব্যাক্তি আরাফার দিন রোযা রাখবে তার বিগত এক বছরের এবং আগামী এক বছরের গুনাহ মাফ করে দেওয়া হবে)
[সহীহ মুসলিম-১১৬২]

৫) তাকবিরে তাশরীক পড়া। ০৯ই জিলহজ্ব (৩১শে জুলাই শুক্রবার) ফযর হতে ১৩ই জিলহজ্ব (৪ই আগষ্ট মঙ্গলবার) আসর পযর্ন্ত প্রত্যেক নামাযের পর একবার তাশরিক পড়া ওয়াজিব। তাশরিক: আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর ওয়ালিল্লাহিল হামদ। পুরুষরা বড় আওয়াজে এবং নারীরা ছোট আওয়াজে পড়বে। [ফাতওয়া সামী-৬১, ইলাউস সুনান-১৪৮]

৬) কোরবানির ঈদের রাতে (শুক্রবার রাতে)ইবাদাত করা। [ইবনে মাজাহ-১৭৮২]
[যদিও হাদিসটি দুর্বল]

৭) ১০ই জিলহজ্ব (শনিবার) কোরবানি করা,১০ তারিখ সম্ভব না হলে ১১,ও ১২ই জিলহজ্ব (রবিবার ও সোমবার) করা।
[সুনানে নাসাঈ-১০৫১২,তিরমিযী-১৪৯৩]

৮) ঈদের দিন ঈদুল আযহার সালাত আদায় করা।[ইবনে মাজাহ-১২৭৭]

৯) ঈদ ও আইয়্যামে তাশরীকে সিয়াম পালন না করা।মানে ১০,১১,১২,ও ১৩ই জিলহজ্ব (শনি,রবি,সোম,মঙ্গলবার) রোযা রাখা হারাম। [বোখারী-১৯৯৭]
আরবি মাসের প্রতি ১৩,১৪,১৫ তারিখ আইয়্যামে বীজের রোযা রাখার নির্দেশ আছে, কিন্তু জিলহজ্ব মাসে সেটা ১৪,১৫,১৬ তারিখ রাখতে হবে, কারণ জিলহজ্ব মাসের ১৩ তারিখ রোযা রাখা যাবেনা।

আল্লাহ সবাইকে তাওফিক দিক-আমীন

Please follow and like us: