পাকিস্তানকে সহযোগিতা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফ্রান্স

November 27, 2020 9:49 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সমালোচনা করায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ওপর খুব রেগে আছে ফ্রান্স। মহানবী (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশকে কেন্দ্র করে ক্ষুব্ধ ব্যক্তির হাতে সেপ্টেম্বরে প্যারিসে এক স্কুলশিক্ষক নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে ম্যাক্রোঁর বিবৃতি ইমরানকে ক্ষুব্ধ করে।

ইমরান তখন ‘অমুসলিম দেশে ইসলামভীতির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ’ হওয়ার ডাক দেন। পাকিস্তানি সংসদ আরও এক ধাপ এগিয়ে প্যারিস থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহারের প্রস্তাব দেয়। পরে জানা গেল, তিন মাস ধরে ওখানে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতের পদটি খালি রয়েছে। ইমরানকে এখন মোচড়াতে শুরু করেছে ফ্রান্স। ফ্রান্সের তৈরি মিরেজ জঙ্গিবিমান কিনেছিল পাকিস্তান ১৫০টি মিরেজ।

এগুলোর সংস্কার (আপগ্রেড) প্রয়োজন। সংস্কারের জন্য পাকিস্তান অনুরোধ করলে ফ্রান্স তা প্রত্যাখ্যান করে। ফ্রান্সে তৈরি তিনটি সাবমেরিন আছে পাকিস্তানের। এগুলোর নাম : খালিদ, সাদ ও হামজা। এ সাবমেরিনগুলোর পানির নিচে বেশিক্ষণ থাকার সক্ষমতা বৃদ্ধির পদ্ধতি উন্নত করার জন্য অনুরোধ করা হলে তা নাকচ করে দেয় ফ্রান্স। শুধু তাই নয়। ফ্রান্সের বানানো রাফায়েল জঙ্গি বিমান কিনেছে কাতার।

ফ্রান্স কাতারকে বলেছে, রাফায়েল দেখভাল করার জন্য পাকিস্তানি কোনো টেকনিশিয়ানকে নিয়োগ দিও না। কারণ ওই টেকনিশিয়ান পাকিস্তানে তথ্য পাচার করতে পারে। মোচড়ানো আরও আছে। আশ্রয় প্রার্থনা করলেই কোনো পাকিস্তানিকে ফ্রান্স আশ্রয় দিচ্ছে না। তার আবেদন দীর্ঘ যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়ায় নিক্ষেপ করছে।