আওয়ামীলীগই উন্নয়ন করেছে রামপাল এবং মোংলার-সিটি মেয়র খালেক

November 28, 2020 6:35 pm

শেখ রাসেল, বাগেরহাট প্রতিনিধি

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, ১৯৯১ সাল থেকে রামপাল মোংলার উন্নয়ন শুধু আওয়ামীলীগ সরকারই করেছে।

২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি সরকার মোংলা বন্দরের কোন খাতে কি উন্নয়ন করেছে সেটা আমার চেয়ে মোংলাবাসী ভালোই জানে।
যদি কেউ প্রমাণ করতে পারেন বিএনপির সময়ে মোংলার উন্নয়ন হয়েছে আমি চ্যালেঞ্জ দিলাম রাজনীতি ছেড়ে দেবো।
তিনি আরো আরো বলেন, খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন এ বন্দরকে একটি মৃত বন্দর ঘোষনা করা হয়েছিল। মোংলার মানুষ কাজ না পেয়ে সন্তান পরিবারসহ এলাকা ছেড়ে চলে গেছেন। ২০০৮ সালে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর মোংলা রামপালে শুরু হয় উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ। বিএনপি আমলের সেই মৃত মোংলা বন্দরকে আজকে একটি লাভজনক বন্দরে রুপান্তরিত করেছে আওয়ামীলীগ সরকার।

শনিবার (২৮ নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩ টায় সেন্ট পলস উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত মোংলা পোর্ট পৌরসভার ৭ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বিশাল কর্মীসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিমের সঞ্চালনায় কর্মী সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস কামরুন নাহার হাই,বাগেরহাট জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ইদ্রিস আলী ইজারাদার, রামপাল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক আব্দুর রউফ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুনীল কুমার বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আব্দুস সালাম, আওয়ামীলীগ নেতা কাজী গোলাম হোসেন বাবলু,মোল্লা তারিকুল ইসলাম, এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম,উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইস্রাফিল হাওলাদার সুন্দরবন ইউপি চেয়ারম্যান কবির উদ্দিন, চিলা ইউপি চেয়ারম্যান গাজী আকবর হোসেন প্রমূখ।

তালুকদার আব্দুল খালেক আরো বলেন, ১৯৯১ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত আমি ও আমার স্ত্রী রামপাল মোংলা সাংসদ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। ১৯৯১ সালে সর্বপ্রথম মোংলা রামপালের ৩ টা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উন্নয়ন কাজের টেন্ডার হলেও সেই উন্নয়ন কাজ বন্ধ করে দেন তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। এভাবে রামপাল মোংলার প্রতিটি উন্নয়ন কাজে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে বিএনপি।

কর্মীসমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন পৌর যুবলীগের সভাপতি এস এম কবির, সাধারন সম্পাদক শেখ আল মামুন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মিজানুর রহমান তালুকদার, ফাহিম হাসান অন্তর, মোঃ নুর আলম, ছাত্রলীগ নেতা কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন রানা, শাহরুখ বাপ্পী, রাজুল ইসলাম সানি, মারজুক রাসেল, পারভেজ খান, কাজী মোঃ সাগর ও মাসুম বিল্লাহসহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।