জেনে নিন ফেইসবুকে এড একাউন্ট ডিজেবলের কারণ

January 8, 2021 9:41 am

ডেক্স রিপোর্ট

নীচের ছবিটির সাথে আমরা সবাইই প্রায় পরিচিত। তবে যারা বিভিন্ন এজেন্সীর মাধ্যমে ফেসবুক এডভার্টাইজ করে থাকেন তাদের ব্যাপারে ভিন্ন কথা। যারা প্রফেশনাল এজেন্সীর মাধ্যমে মার্কেটিং ক্যাম্পেইন রান করেন তাদের জন্য এই আর্টিকেলটি খুব বেশী প্রয়োজন না হলেও যারা নিজেরাই মার্কেটিং করে থাকেন এবং ফেসবুকই অনলাইন মার্কেটিং এর একমাত্র হাতিয়ার তাদের জন্য এই লেখাটি খুবই এফেক্টিভ হবে।

No photo description available.
ফেসবুক এড একাউন্ট ডিজেবল একটি স্বাভাবিক সমস্যা থাকলেও বেশ কিছুদিন ধরে এটি অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। এর মধ্যে আমার আপনার ভুলের পাশাপাশি ফেসবুকেরও বাগ ও মেশিন লার্নিং দায়ী।

সম্প্রতি এক আর্টিকেল অনুযায়ী, ফেসবুক যেহেতু যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক কোম্পানী এবং তাদের মুল কার্যক্রমে সেখানকার পরিবেশ প্রভাব ফেলে সেজন্য এবারের যুক্তরাষ্ট্র প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফেসবুক অতিমাত্রায় মেশিন লার্নিংয়ে ঝুঁকেছে। ফেসবুক টিম যুক্তরাষ্ট্র নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বেশী মনযোগী হওয়ায় যারা খুচরো ব্যবসা করেন এবং সেই সাপেক্ষে যাদের ফেসবুকে মার্কেটিং করতে হয় তারা পড়েছেন বিপাকে।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের কারণে অনেক সময় এড রিজেক্ট হয়ে যায় আবার বিভিন্ন সময় রিজেক্ট না হয়ে সরাসরি এড একাউন্ট ডিজবেলড, এডভার্টাইজিং রেস্ট্রিকশনসহ নানান ঝামেলা যেন এখন নিত্যদিনের ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। এই ধরনের সমস্যাগুলো নিয়ে আমাদের কাছে অনেক ক্লায়েন্ট আক্ষেপ করে বলেন যে “ভাই, বিজনেসই করবো না আর, এভাবে বিজনেস করা যায় নাকি”।
আমরা পরামর্শ দেই, সমাধান করি। কিন্তু যারা আমাদের সরাসরি ক্লায়েন্ট না তাদের সমস্যার সমাধান নিয়েই এই লেখা খুবই কাজে আসবে বলে আমরা মনে করি।
ফেসবুকের সমস্যা এবং আমাদের না জানার মাঝেও একটি বিষয় হলো সতর্কতা। বর্তমান এই সমস্যাগুলোর মধ্যে বেশ কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকলে এই ধরনের সমস্যাগুলো একেবারে শুন্যের কোঠায় নিয়ে আসা সম্ভব। যদিও মেশিন লার্ণিং এর জন্য হওয়া সমস্যাগুলো নিয়ে আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।
এবার চলুন জেনে নিই ঠিক কি ধরনের পদ্ধতি ও সতর্কতা মেনে চললে আপনিও এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে পারেন।
১) ফেসবুক কম্যুনিটি গাইডলাইন ফলো করা।
২) পেমেন্ট মেথড নিয়ে ভায়োলেশন এবং কান্ট্রী লোকেশন মিসম্যাচ।

ফেসুবক কম্যুনিটি গাইডলাইন এর বাইরে যদি আপনার কোন পোস্ট পড়ে তবে আপনার পোস্ট রিজেক্ট হবে এটাই স্বাভাবিক। এভাবে বারবার কম্যুনিটি স্ট্যান্ডার্ড ভায়োলেট করলে আপনার এড একাউন্টের পাশাপাশি পার্সোনাল আইডিও ডিজেবল হতে পারে তাই এই ব্যাপারে সতর্কতা খুবই প্রয়োজনীয়।
ফেসবুক কম্যুনিটি গাইডলাইন চাইলে নীচের সোর্স লিংক থেকে ভিজিট করতে পারেন অথবা চাইলে সম্পুর্ণ বাংলায় আমাদের ইনবক্সে নক করে পিডিএফও কালেক্ট করতে পারেন। কম্যুনিটি গাইডলাইন পুরোপুরি পড়ার পর আপনি এডস এপ্রুভাল এবং গাইডলাইন নিয়ে বিস্তর একটি আইডিয়া পাবেন।
এবার আসি পেমেন্ট মেথড নিয়ে সমস্যায়। অনেকেই বাংলাদেশী বিভিন্ন ব্যাংকের ডুয়েল কারেন্সী কার্ডের মাধ্যমে বুষ্ট বা প্রমোট করে থাকেন। এছাড়াও পেপাল বা এড ক্রেডিট এর মাধ্যমেও বুষ্ট করা যায়।
বাংলাদেশে এখনোও পেপাল, পেওনিয়ার এর মতো ইন্টারন্যাশনাল গেটওয়েগুলো অনুমোদন না পাওয়ায় বাংলাদেশ লোকেশন থেকে পেপাল ব্যবহার করা বেশ ঝুঁকিময়। তাই যারা পেপালে বুষ্ট বা প্রমোট করছেন তারা অবশ্যই অনুমোদিত কোন লোকেশন থেকে এটি ব্যবহার করবেন। বর্তমানে আমাদের বেশীরভাগেরই রিলেটিভ আছেন বিদেশে। আপনি চাইলে বিভিন্ন রিমোট সফওয়্যারে মাধ্যমে তাদের পিসি বা মোবাইলের মাধ্যমে বুষ্ট করতে পারেন।
ফেসবুকে বুষ্ট করার পদ্ধতিঃ
১) অথোরাইজড ব্যাংকের ক্রেডিট-ডেবিট কার্ড (অবশ্যই ডুয়েল কারেন্সী হতে হবে)।
২) ফেসবুক এড ক্রেডিট। যা ফেসবুক অনেক সময় ইউজার এক্যুইজেশন পারপোজে দিয়ে থাকে।
৩) ফেসবুক কুপন। ফেসবুক কুপন বর্তমানে অত্যধিক ব্যবহৃত একটি শব্দ।

যে মেথড ব্যবহার করেই পেমেন্ট করুন, সবসময় এটা খেয়াল রাখবেন যে আপনার মেথডটি লিগ্যালী ব্যবহার হচ্ছে কিনা। বর্তমানে অনলাইনে অনেক ভার্চুয়াল কার্ড পাওয়া যায় যেগুলো ব্যবহার করে বুষ্ট করা যায় কিন্তু এর বেশীরভাগই কিছু বাইপাস ব্যবহার করে প্রভাইড করায় রিস্কী এবং এর ফলে আপনার এড একাউন্ট ডিজেবল হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।
মেশিন লার্নিংয়ে এড একাউন্ট ডিজেবল হওয়ার কিছু সাধারণ কারণঃ
▶ শর্টার এবং লুকএলাইক স্প্যামিং লিংক ব্যবহার করাঃ
আমরা অনেকেই বড় কোন ইউআরএল কে শর্ট করে লিখতে গিয়ে বিভিন্ন ইউআরএল শর্টেনার টুল ব্যবহার করে সেই ওয়েবসাইটের সাবডোমেইন ব্যবহারের মাধ্যমে শর্ট লিংক ব্যবহার করে থাকি। যা ফেসবুকের মেশিন লার্নিং এর কাছে স্প্যামিং হিসেবে ট্রিট করার সম্ভাবনা প্রবল। ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিসে আমাদের প্রতিদিন অনেক পোস্ট বুষ্ট করতে হয়। যতগুলো পোস্ট এর কারণে এড একাউন্ট ডিজেবল হয়েছে তার বেশীরভাগেই আমরা এই সমস্যা পেয়েছি। এছাড়াও সেম পোস্ট অরিজিনাল লিংক ব্যবহার করে পোস্ট করলে এপ্রুভ হয়ে যায়।
▶ পোস্টে কোন টাকার এমাউন্টের গ্যারান্টেড অফার, লটারী এবং জুয়ার মতো কনটেন্ট ব্যবহার করাঃ
অনেকেই পোস্টে “নিশ্চিত ১ লাখ টাকা পাওয়ার সুযোগ” “গ্যারান্টেড ইনকাম” এই ধরনের হেডলাইন ব্যবহার করে থাকেন। ফেসবুকের আর্র্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স আগের চেয়ে অনেক আপগ্রেডেড হওয়ায় বাংলা লেখাও প্রায় নির্ভূলভাবে ইংরেজীতে ট্রান্সলেট হয়ে যায়, ফলে এই ধরনের হেডিং বা কনটেন্ট ব্যবহার করলে ফেসবুক অটোমেশন এর আওতায় আপনার পোস্টটি গণ্য হয়ে যেতে পারে।

▶ সঠিক ক্যাটাগরি ব্যবহার করে বুষ্ট না করাঃ

ফেসবুকে এড প্লেসমেন্ট এর বেশ কিছু ক্যাটাগরি রয়েছে। এর মধ্যে তিনটি ক্যাটাগরি স্পেশাল ক্যাটাগরি হিসেবে এড করা হয়েছে। আপনার প্রোডাক্ট যদি এই তিনটির মধ্যের যেকোন একটি হয় তবে আপনাকে অবশ্যই স্পেশাল এড ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে এড প্লেস করতে হবে। এই তিনটি তিনটি হলোঃ
১) হাউজিং। অর্থ্যাৎ প্রপার্টি বিজনেস, রিয়েল স্টেট। আপনি যদি প্রপার্টি বা ল্যান্ড নিয়ে কোন এড নিতে চান তবে এই ক্যাটাগরিটি প্রযোজ্য হবে।

২) ক্রেডিট লোন, বীমা বা ঋণ নিয়ে এড হলে এই ক্যাটাগরিটি বর্তাবে।

৩) জব প্লেসমেন্ট বা এমপ্লয়মেন্ট। আপনি যদি কর্মী রিক্রুট করতে চান বা কোন জবের নোটিশ প্রচার করতে চান তবে এটিও স্পেশাল ক্যাটাগরির মধ্যে গণ্য হবে।

এছাড়াও আরো বিভিন্ন কারণে ফেসবুকের কম্যুনিটি স্ট্যান্ডার্ড ভায়োলেট হয় যার ফলে আপনার এড রিজেক্ট এবং এড একাউন্ট ডিজেবল হতে পারে।