৪৩-এ পা দিলেন সৌন্দর্যের দ্যুতিতে অম্লান বিপাশা

January 8, 2021 9:54 am

আব্বাস মাস্তানের ‘আজনবি’ ছবি বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে যাত্রা শুরু করেছিলেন বাঙালী কন্যা বিপাশা বসু। ২০০১ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবিতেই অক্ষয় কুমারের বিপরীতে দুঃসাহসী ভূমিকায় অভিনয় করে জিতে নিয়েছিলেন সেরা ডেবিউ অভিনেত্রীর পুরষ্কার।

১৯৭৯ সালের ৭ জানুয়ারি নয়াদিল্লিতে বাঙালি হিন্দু পরিবারে জন্মগ্রহণ করা বিপাশা বসু মডেল তারকা হিসেবে ১৯৯৬ সালে ফোর্ডস গোদরেজ সিন্থল সুপারমডেল প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হন।

ফোর্ডস গোদরেজ সিন্থল প্রতিযোগিতায় জয়লাভের পর বিপাশা বসু ফোর্ড কোম্পানীর আমন্ত্রণে নিউইয়র্কে যান। সেখানে তিনি ১৭ বছর বয়সে সফলভাবে মডেলিংয়ের উপর প্রশিক্ষণ নেন ও মডেলিংয়ের মাধ্যমে প্রচার মাধ্যমে নিজেকে নিয়ে আসেন।

একের পর এক হিট ছবি উপহার দিয়ে সমসাময়িক অনেক নায়িকাকেই পিছনে ফেলে এগিয়ে যান এই অভিনেত্রী। ২০০২ সালে তার অভিনীত ‘রাজ’ ঐ বছরে সবচেয়ে ব্যবসা সফল ছবির মর্যাদা পায়। এমন কি ছবিতে অসামান্য অভিনয়শৈলীর জন্য তিনি প্রথমবারের মতো ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন।

২০০৩ সালে আরেক ব্যবসা সফল ‘জিসম’ ছবিতে জন আব্রাহামের সাথে অভিনয় করেন বিপাশা। এ ছবির মাধ্যমে তিনি ফিল্মফেয়ারের সেরা খল অভিনেত্রীর জন্য মনোনয়ন পান তিনি। এরপর ‘কর্পোরেট’, ‘রেস’, ‘বচনা এ হাসিনো’-সহ একাধিক ছবিতে বিপাশার লাস্যময়ী আবেদন ও অভিনয় দুয়েরই কদর করা হয়।

সবসময় আলোচনায় থাকাটাই যেন তার পছন্দ। এক সময়ে অভিনেতা জন আব্রাহামের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল বিপাশার। দুজনে একসঙ্গে থাকতেও শুরু করেন। জন এবং বিপাশার ভক্তরা ভেবেছিলেন দুই সুপারমডেলের চারহাত এক হল। কিন্তু না! প্রায় নয় বছর একসঙ্গে থাকার পর আলাদা হয়ে যান জন ও বিপাশা।

এরপর বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অভিনেতার সঙ্গে নাম জড়ায় বিপাশার। যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচিত হয় বাহুবলী’র বল্লালদেব খ্যাত অভিনেতা রানা দাগগুবতির সঙ্গে প্রেম নিয়ে। যদিও এ নিয়ে বরাবরই নিরব থেকেছেন তাদের দুজনেই।

বিভিন্ন জনের সাথে বিপাশার সম্পর্ক নিয়ে যতই জলঘোলা হয়েছে, তার সবটাই বদলে গেছে তার অভিনীত ‘অ্যালোন’ ছবির সেটে। শুটিং করতে গিয়েই ছবির অভিনেতা করণ সিং গ্রোভারের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয় তার।

যদিও নিন্দুকেরা সেই সময় বলেছিল যে বয়সে ছোট করণ বেশি দিন বিপাশার সঙ্গে থাকবেন না। কিন্তু নিন্দুকদের মুখে ছাই দিয়ে ২০১৬ সালে বিয়ে করেন দুজনে। আর এখনও তাদের প্রেম দেখার মতো। সম্প্রতি এই অভিনেত্রী এক সাক্ষাৎকারে জানান, করণের স্ত্রী হিসেবে তিনি নিজেকে ভাগ্যবতী মনে করেন।

২০০৫ এবং ২০০৭ সালে যুক্তরাজ্যভিত্তিক ম্যাগাজিন ইস্টার্ন আই বিপাশাকে এশিয়ার সবচেয়ে যৌনাবেদনময়ী মহিলা হিসেবে উল্লেখ করে। গতকাল (৭ জানুয়ারি) জন্মদিন ছিল বিপাশার। ৪২ বছর পুর্ণ করে ৪৩-এ পা দিলেন তিনি। এমন দিনে তার অনুরাগীদের প্রত্যাশা… এভাবেই সুন্দর থাকুন সবসময়।