মেয়েদের প্রথম অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ডিসেম্বরে

January 10, 2021 10:44 am

স্পোর্টস ডেক্সঃ

করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে স্থগিত হওয়া মেয়েদের প্রথম অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে আগামী ডিসেম্বরে। এই আসরটি আয়োজন করবে বাংলাদেশ। গতকাল বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমকে এমনটা নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বর্ডের (বিসিবি) উইমেন্স উইংয়ের চেয়ারম্যান শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল। চলতি মাসে মাঠে গড়ানোর কথা ছিল অনূর্ধ্ব-১৯ নারী বিশ্বকাপ।

প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নারীদের এই বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টের আয়োজক ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে তা স্থগিত হয়ে যায়। তবে এ বছরই বাংলাদেশে বসবে আসরটি। এ বছরের ডিসেম্বরে বিশ্বকাপটি মাঠে গড়াবে বলে নিশ্চিত করেন নাদেল।

আজ মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, আমরা আইসিসির আয়োজক হতে যাচ্ছি। যা এ বছরের জানুয়ারিতে হবার কথা ছিলো। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে হয়নি। এই বছরের শেষের দিকে ডিসেম্বরে সেটা বাংলাদেশেই অনুষ্ঠিত হবে।’

নারীদের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ইতোমধ্যেই সারা দেশের বিভাগীয় কোচদের মাধ্যমে প্রতিভাবান ক্রিকেটার বাছাই প্রক্রিয়া শুরু করেছে বিসিবি উইমেন্স উইং। তাদের সাথে সহযোগিতায় থাকছে গেম ডেভলপমেন্ট বিভাগ। দল বাছাইয়ের প্রক্রিয়ার ব্যাপারে নাদেল বলেন, ‘আমাদের আগে থেকেই কিছু পরিকল্পনা ছিলো। আমরা আমাদের মেয়েদের বয়স ভিত্তিক পর্যায়ে কিছু টুর্নামেন্ট আয়োজন করে আমাদের পাইপলাইনকে আরও বেশি শক্ত করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘সারা দেশে ক্রিকেট বর্ডের বিভাগীয় কোচদের মাধ্যমে বাছাই প্রক্রিয়া শুরু করেছি। গেম ডেভলপমেন্টের সহায়তায় এবং নারী বিভাগ যৌথভাবে পুরো দেশে জেলা ভিত্তিক অনুর্ধ্ব-১৯ দল প্রস্তুত করতে চাই। সেখান থেকে বাছাই করে আমাদের জাতীয় দলও গড়ব। এই প্রক্রিয়ার মধ্যে দুটি কাজ হচ্ছে। প্রতিটি জেলায় মেয়েদের একটা দল হয়ে যাচ্ছে। জাতীয়ভাবেও আমরা আরেকটি দল তৈরি করব। ভবিষ্যতে তাদেরকে নিয়ে আমাদের দীর্ঘমেয়াদি কিছু পরিকল্পনাও রয়েছে। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী দেখা যাবে এই দলটাই জাতীয় পর্যায়ে একটা সময় আমাদের প্রতিনিধিত্ব করবে।’

করোনার মধ্যে স্বাস্থ্য বিধি মেনেই বাছাই প্রক্রিয়া হবে বলেও জানান নাদেল, ‘স্বাস্থ্যবিধির দিকে আমরা অবশ্যই গুরুত্ব দেবো। এ বিষয়ে কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হবে না। খেলোয়াড় বাছাই করতে ইতোমধ্যেই বিভিন্ন বিভাগ থেকে ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করছি। সেখান থেকে বাছাই করে আমাদের পরবর্তী কাজ শুরু করবো। ৭ থেকে ১৭ জানুয়ারির মধ্যেই ভিডিও ফুটেজগুলো সংগ্রহ করা হবে। এখান থেকেই আমাদের বাছাই প্রক্রিয়াটা শুরু করা হবে।’