চিলমারীতে গৃহবধূকে মারধর, বাড়ি-ঘর ভাংচুর

February 1, 2021 10:17 pm

এস এম রাফি চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে গৃহবধুকে মারধরসহ বাড়ি ঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। আহত অবস্থায় গৃহবধু রেপুনা আক্তার সাথী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

উপজেলার রমনা ইউনিয়নের সরকারবাড়ী গ্রামস্থ মোঃ আশরাফ আলী এর ছেলে মোঃ আমিনুল ইসলামের স্ত্রী রেপুনা আক্তার সাথীর সাথে ঘটনাটি ঘটেছে।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, ২৬ তারিখ ( জানুয়ারী) রাতের খাবার শেষে রেপুনা আক্তার সাথী তার সন্তানদের সাথে ঘুমিয়ে পরে। ঐ রাতেই ২৭ তারিখ রাত ৩ টার দিকে ঐ গৃহবধুর বাড়ির গেটের সামনে চিল্লাচল্লি শুনে উঠে বাড়ির গেট খুললে জিমানুর, বিশাল, জাহাঙ্গীর, তুফান সহ আরো কয়েকজনকে দেখতে পান। পরে ঐ গৃহবধু তাড়াতাড়ি করে বাড়ির গেট বন্ধ করে ভিতরে ঢুকে পরে এবং তার রুমে দরজা বন্ধ করে। পরবর্তীতে আসামীগন অতর্কিত ভাবে চাইনিজ কুড়াল ও রাম দা দিয়ে বাড়ির গেটে এলোপাথাড়ি চোটাইতে থাকে এবং অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। অপর দিকে আসামিগণ বিভিন্ন ভয়ভীতি সহ হত্যার হুমকি দেয়।

সে দিন সকালেই (২৭জানুয়ারি) আবার জিমানুরসহ আরোও বেশ কয়েকজন লাঠি, ছোরা, রামদা, চাইনিজ কুড়াল সহ বাড়িতে ঢুকে রেপুনা আক্তার সাথীর উপর কিল ঘুসি করে টানা হ্যাচড়া করে বাইরে বের করে এবং ঘরে থাকা নগদ ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা চুরি করে।

ঘটনাস্থলেই রেপুনা আক্তার সাথী আহত হলে তাকে চিকিৎসাসেবা দেয়ার জন্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

পরে রেপুনা আক্তার সাথীর বাবা বাদী হয়ে চিলমারী মডেল থানায় একটি মামলা এজাহার করে যার মামলা নং- ০৩, ৩০/০১/২০২১ইং
এব্যাপারে চিলমারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আমিনুল ইসলাম কে ফোন দিলে পাওয়া যায়নি।