কাচাঁবাজার ও নিত্যপণ্যের দোকোনে ভিড়, রূপগঞ্জে ঢিলেঢালা লকডাউনেস্বাস্থ্যবিধি মানছেনা কেউ

April 18, 2021 10:35 pm

এ আর ইব্রাহিম, রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)প্রতিনিধি

মহামারী করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সারাদেশে সরকারের ঘোষিত কঠোর লকডাউনে রূপগঞ্জের কোথাও স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দুরত্ব মানছেনা কেউ। রূপগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজার ও নিত্যপণ্যের দোকানে লকডাউন চলছে অনেকটা ঢিমেতালে। চায়ের দোকান, কাচাঁবাজার ও রাস্তায় সাধারণ মানুষের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। রূপগঞ্জের ভুলতা, বরপা, মাসাবো, সুতালড়া, মৈকুলী, কাঞ্চন, মুড়াপাড়া, চণপাড়া, নোয়াপাড়া, ইছাপুড়া ও তারাবোসহ বেশীরভাগ বাজারগুলোতেই চলছে কেনাবেচার ধুম। বাজারগুলোতে কেউ স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দুরত্ব মানছেনা। ক্রেতা বিক্রেতারা মাস্ক ব্যবহার করছেনা। কিন্তু ক্রেতা বিক্রেতাদের অধিকাংশরাই মাস্ক ব্যবহার করছে না। কেউ কেউ গলায় কিংবা থুতনিতে মাস্ক ব্যবহার করছে।

রূপগঞ্জ উপজেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলছে। উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্রেক্সের দেয়া তথ্য মতে এ পর্যন্ত রূপগঞ্জে মোট ২১৬৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১৪ জনের।

গতকাল ১৮ এপ্রিল রবিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্তÍ উপজেলার ভুলতা, বরপা, মাসাবো, সুতালড়া, মৈকুলী, কাঞ্চন, মুড়াপাড়া, চণপাড়া, নোয়াপাড়া, ইছাপুড়া ও তারাবোসহ বেশ কয়েকটি হাট বাজার ঘুরে দেখা গেছে একই চিত্র। এখানকার বাজারগুলোতে লকডাউন বা স্বাস্থ্যবিধির কোন বালাই নেই। এর মধ্যে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির সামনেই কাঁচাবাজার। এখানে সবচেয়ে বেশী অনিয়ম দেখা গেছে। ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির পক্ষ থেকে নেয়া হচ্ছেনা কোন পদক্ষেপ। তারা দায়সারাভাবে রুটিন মাফিক টহল দিয়ে চলে যায় বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে।

সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ৩ টা পর্যন্ত নিত্যপণ্য ও কাঁচাবাজার খোলা রাখার নির্দেশ থাকলেও তা মানছেনা দোকানদাররা। তারা সকাল থেকে রাত্র পর্যন্ত অবিরাম খোলা রাখছে দোকান। কিন্তু রূপগঞ্জের সব এলাকায়ই নিত্যপণ্য ও কাঁচাবাজারের পাশাপাশি কাপড়ের দোকান,মোবাইল ফোনের দোকান, সেলুন, ধুনকার, হার্ডওয়্যার, ক্রোকারিজসহ সব ধরণের দোকানপাট খোলা রাখা হচ্ছে।

রমযান মাসে লকডাউনে চায়ের দোকানগুলোতে জমছে নিয়মিত আড্ডা। তাছাড়া কাচাঁবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান গুলোতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে মানুষ। মাঝে মধ্যে ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের গাড়ির সাইরেন শুনলে রাস্তাও দোকানপাট ফাঁকা হয়ে যায়। পরক্ষণেই আবার আগের অবস্থায় ফিরে আসে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শাহ্ নুসরাত জাহান বলেন, লকডাউন কঠোর করতে প্রশাসন তৎপর রয়েছে। নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানা করা হচ্ছে।###