অনন্য এক উদ্যোগ ডিসির; এতিম ও দুঃস্থ রোজাদারদের জন্য ইফতারী

April 19, 2021 3:03 pm

নাজমুল হাসান নিরব, ফরিদপুর প্রতিনিধি :

ফরিদপুর সদর উপজেলার চরমাধবদিয়া ইউনিয়নের আছিরুউদ্দিন শেখ ডাক্তার দেখানোর জন্য এসেছিলেন শহরে। দেরি হওয়ায় ইফতার করা নিয়ে সংশয় শুরু হয়। করোনা পরিস্থিতির কারনে শহরের হোটেল গুলো বন্ধ। এমন ভাবনায় যখন তার সময় কাটছে তখন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে থাকা ইফতারী পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন আছিরউদ্দিন। তিনি বলেন, ‘আমি অসুস্থ, একটা রিক্সা রিজার্ভ করে চরমাধবদিয়া থ্যা আইসা ডাক্তার দেখাইয়া বাড়ি যাইতেছি। আমি রোজা আছি। খাবারের হোটেল বন্ধ থাকায় চিন্তা করছিলাম ইফতারী করবানি কোথায়। আল্লা মিলায় দিছে। ডিসি সাবের জন্নি আমি দোয়া করি।

ফরিদপুরের একটি বেসরকারি হাসাপাতালে ডাক্তার দেখাতে এসেছিলেন বাচ্চু খা। বসত বাড়ি চর হাজিগঞ্জ। সাথে নিয়ে এসেছিলেন একজন রিক্সা চালক। দুজনে ইফতারীর দুটি প্যাকেট পেয়ে দারুন খুশি। বললেন, ‘ইফতারী পাইয়া আমাগো খুব উপকার হইছে।’ কানাইপুর থেকে স্টেশন বাজার এলাকায় দুধ দিতে এসেছিলেন রিক্সা চালক মাইনদ্দিন মন্ডল। বললেন, আমি সারাদিন রিক্সা চালাইন্যে। চুক্তিতে দুধ দিয়ে আসি। দুপুরে বাইরেই। সন্ধ্যায় বাড়ি যাইয়্যা ইফতার করি। আজ দেরি হইয়্যে গেছে। এখন ইফতারি পাইয়্যা খুব উপকার অইলো।

এভাবে শত শত মানুষের ইফতারীর আয়োজন শুরু করলেন প্রতিদিন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার। গত বছর তিনি এই কার্যক্রম করে ছিলেন। তার এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন সেবারও ব্যাপক সাড়া ফেলে জেলায়।

এমনিতেই বৈশ্বিক দুয়োর্গ করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে ফরিদপুরের সব মানুষই স্বাস্থ্যবিধি মেনে বসতবাড়িতে রয়েছে। তবে অতীব প্রয়োজনে কাউকে না কাউকে বাইরে আসতেই হচ্ছে। বিশেষ করে জরুরী চিকিৎসা সেবার জন্য কারো কারো হাসপাতালে আগমন সহ বিভিন্ন কারনে গন্তব্য তার শহরে। এদের সাথে স্বজনও আসতে হয়। আসতে হয় গাড়ি চালককেও। আবার জরুরী খাদ্য বা জরুরী অন্যান্য সামগ্রীর প্রয়োজনেও কাউকে বাইরে বের হতে হয়। যারা বাইরে বের হয় তাদের সবারই বাড়ি শহরে বা শহরের সন্নিকটে নয়। কারো করো বাড়ি বেশ দূরে। চলমান রমজান মাসে এসব ক্ষেত্রে ভ্রমণরত এতিম ও দুঃস্থ রোজাদারদের জন্য ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার ইফতারীর আয়োজন করেছেন। প্রতিদিন চলছে এ আয়োজন। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে দেয়া হচ্ছে ইফতারী।

রবিবার থেকে শুরু হয়েছে এ কার্যক্রম। ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের পক্ষে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দীপক কুমার রায়।

এ সময় নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) আশিক আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী দিনে একশত জন রোজাদার মুসাফিরকে ইফতার সামগ্রী প্রদান করা হয়।