নিউমার্কেটে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়

April 26, 2021 11:51 pm

নিউজ ডেক্সঃ

দীর্ঘদিন পর মার্কেট ও শপিংমল খুলে দিতেই ক্রেতাদের ভিড়ে লোকারণ্য হয়ে উঠেছে রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা। বন্ধের পর নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আর ঈদ উপলক্ষে শপিং করতে হাজারো মানুষের ঢল নেমেছে।

নেই কোনো স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই। মহামারি আকার নেওয়া করোনাকে যেন পায়ে মাড়িয়ে চলছে কেনাকাটা!
সোমবার (২৬ এপ্রিল) বিকেলে সরেজমিনে নিউমার্কেট ঘুরে দেখা যায় এমন চিত্রই। একইসঙ্গে সঠিকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানতেও দেখা যায়নি কাউকে।

বিশেষ করে নিউমার্কেটের ফুটপাত ও ফুটওভারব্রিজের উপর ভিড় দেখা যায় সবচেয়ে বেশি, যা সত্যিই এই পরিস্থিতিতে গা শিউরে ওঠার মতো। মার্কেটের ভেতরেও প্রায় একই চিত্র। ভিড়ের মধ্যে দোকানে দোকানে ঘুরে শপিং করছেন ক্রেতারা। তাদের দেখে মনে হওয়ার উপায় নেই বর্তমান সময়টি করোনা মহামারির।

করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে এবং সুস্থ থাকতে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব একেবারেই উপেক্ষিত। অনেক দোকানদার ও ক্রেতাদের মাস্ক ব্যবহার না করতে দেখা গেছে। এছাড়া কেউ কেউ হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করলে বা দোকানে রাখলেও অধিকাংশ দোকানেই তা দেখা যায়নি। পুরো চিত্র দেখে মনে হয়েছে, করোনার ভয়াবহতা থেকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে এসেছে নগরী।

এ বিষয়ে রাজধানীর আজিমপুর এলাকার বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম বলেন, ভেবেছিলাম করোনার ভেতর এখন মার্কেটে লোক কম। সংবাদ এবং গণমাধ্যমেও তাই দেখলাম। সেজন্যই কেনাকাটা করতে আসা, যে ফাঁকায় ফাঁকায় একটু শপিং সেরে নেই। কিন্তু এখন তো এসে দেখি অন্যরকম চিত্র। এরকম জনসমাগম হলে করোনা ভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়বে।

এদিকে প্রতিটি মার্কেটের সামনে ফুল বডি স্যানিটাইজার মেশিন থাকলেও দু-একটি ছাড়া বাকিগুলো চলতে দেখা যায়নি। নিউমার্কেটে আসা ক্রেতারা জানান, দীর্ঘ সময় শপিং করতে না পারায় আসতে বাধ্য হয়েছেন তারা। তবে করোনা সংক্রমণ নিয়েও ভয়ে আছেন।

আর ব্যবসায়ীরা বলছেন, তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কাজ করছেন। ক্রেতাদের দিচ্ছেন হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক না থাকলে দিচ্ছেন না সেবা। তবে উল্টো চিত্র ফুটপাতের দোকানগুলোতে। তবু নিউ সুপার মার্কেটের কিছু দোকানেও স্বাস্থ্যবিধি পালনে দেখা গেছে অনীহা।

এ বিষয়ে ঢাকা নিউ সুপার মার্কেট (দক্ষিণ) বণিক মালিক সমিতির সভাপতি মো. শহিদুল্লাহ বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধের ফলে প্রয়োজনের তাগিদেই এখন মানুষ আসছে। আমরা সব সময়ই ব্যবসায়ীদের সচেতন করছি স্বাস্থ্যবিধি মেনে পণ্য বিক্রির জন্য। যারা মানছেন না তাদের জন্য কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থাও নেওয়া হচ্ছে এবং আমরা সচেতনভাবে ব্যবসা করতে অঙ্গিকারাবদ্ধ।