নকলায় যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামী কলেজ প্রভাষক

August 22, 2016 5:08 pm

স্থানীয় প্রতিনিধিঃ

শেরপুরে যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামী নকলা হাজী জালমামুদ কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক এসএম আমিনুজ্জামান ফারুককে (৫৮) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ২২ আগস্ট সোমবার দুপুরে নকলা শহর থেকে গোয়েন্দা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালহ্উদ্দিন সিকদার এএম আমিনুজ্জামান ফারুককে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এর গ্রেপ্তারী পরোয়ানমূলে তাকে নকলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত আমিনুজ্জামান ফারুককে ঢাকার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সংশ্লিষ্ট কোর্টে সোপর্দ করার জন্য পুলিশ প্রহরায় পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, নকলা বাজারদি এলাকার সৈয়দ আলম মঞ্জু ২০০৯ সালের ১৩ এপ্রিল ইসিবপুর এলাকার বাসিন্দা কলেজ শিক্ষক এসএম আমিনুজ্জামন ফারুকের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনে নকলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় বাদী অভিযোগ করেন, ১৯৭১ সালের ২৭ আগস্ট সন্ধ্যায় তার চাচা সৈয়দ শাহজাহান আলী নকলা ধানহাটি বাজার মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে বের হচ্ছিলেন। এ সময় আলবদর বাহিনীর সদস্য এসএম আমিনুজ্জামান ফারুক ও তার ৫ সহযোগী তাকে ধরে নকলা থানায় নিয়ে যায়।

পরে সেখান থেকে নকলা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে পাক বাহিনীর ক্যাম্পে নিয়ে গায়ের কাপড়, মাথার পাগড়ি খুলে মুখে ঢুকিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। দেশে যুদ্ধাপরাধিদের বিচার কার্যক্রম শুরু হলে এ ঘটনায় সৈয়দ আলম মঞ্জু বাদী হয়ে নকলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে সেই মামলাটি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়।

স্থানীয় সুত্রগুলো জানায়, মামলা দায়েরের পর ২০০৯ সালের ২৬ জুন নকলা হাজী জালমামুদ কলেজ কর্তৃপক্ষ বাংলা বিভাগের প্রভাষক এসএম আমিনুজ্জামান ফারুককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে।

Please follow and like us:

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*