রাজৈরে মরণ নেশা ব্লু হোয়েল গেম খেলে ৮ম শ্রেনির ছাত্র অসুস্থ

অক্টোবর ১৭, ২০১৭ ৩:৫৪ দুপুর

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ

মাদারীপুরের রাজৈরে মরণ নেশা ব্লু হোয়েল গেম খেলে স্বপ্ন মালো (১৩) নামের ৮ম শ্রেনির ছাত্র অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। সোমবার রাত ৮টার দিকে রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট বন্দরের ইউএস মডেল হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সে রাজৈর পৌর কুঠিবাড়ি এলাকার মানিক মালোর ছেলে ও রাজৈর-গোপালগঞ্জ কেজিএস পাইলট মডেল ইনষ্টিটিউশনের ৮ শ্রেনির শিক্ষার্থী।

আজ মঙ্গলবার বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে । অনেক অভিভাবক তাদের ছেলে মেয়েদের নিয়ে আতংকিত হয়ে পড়েছে ।

শিক্ষার্থী, শিক্ষার্থীর পারিবারিক ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, ৮ থেকে ১০দিন আগে ইন্টারনেট থেকে কৌতুহলবশত ‘ব্লু হোয়েল’ গেম ডাউনলোড দেয় শিক্ষার্থী স্বপ্ন মালো। এরপর এডমিনের শর্ত অনুযায়ী হাতে তিমি মাছ একে ৭টি ধাপ অতিক্রম করে। পরে রাতের আঁধারে মোমবাতি হাতে নিয়ে বাড়ির ছাদে যেতে বলা হয় ওই শিক্ষার্থীকে। এরই মধ্যে ফেসবুকে ‘ব্লু হোয়েল’ গেম খেললে মানুষ মারা যায় এমন একটি খবর লিংকে দেখে পড়ে বিষয়টি সম্পর্কে সচেতন হয় ওই শিক্ষার্থী। এরপর তাঁকে সুইচ দিয়ে হাতে একশ’ ছিদ্র করতে বলা হলে সে নিজেকে বাঁচাতে মোবাইল ফোন ভেঙ্গে ফেলে। কিন্তু গেমের ঘোর থেকে বের হতে না পারায় অসংলগ্ন হয়ে পড়ে ওই শিক্ষার্থী । পরে পরিবারের রোকজন টের পেয়ে সোমবার রাতে তাকে টেকেরহাট ইউএস মডেল প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে হাসপাতাল পরিদর্শন করেছে পুলিশের উধর্বতন কর্মকর্তারা। এদিকে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ায় ওই শিক্ষার্থীকে পর্যাপ্ত চিকিৎসার পাশাপাশি কাউন্সিলিং করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

স্বপ্ন মালোর বাবা মানিক মালো বলেন, আমার ছেলে মরণ নেশার হাত থেকে বেঁচেছে। সরকারের কাছে আকুল আবেদন, এই ‘ব্লু হোয়েল’ গেম যেন বন্ধ করে দেয়।

হাসপাতালের চিকিৎসক পীযূষ চন্দ্র মন্ডল বলেন, আমরা ছেলেটিকে পর্যাপ্তভাবে কাউন্সিলিং দিচ্ছি, সে যাতে ভীতু না হয়। তাদের মনের মাঝে ভয়, ভয় কাজ করছে। তবে, চিকিৎসা চলছে, স্বাভাবিক হতে কিছুদিন সময় লাগবে। রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জিয়াউল মোর্শেদ বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ছেলেটি সুস্থ্য রয়েছে। ব্লু হোয়েল গেম সম্পর্কে সকল বাবা-মাকে সর্তক হতে হবে, যেন তাদের সন্তান এই খেলায় মগ্ন না হয়।