অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে অগ্রণী ব্যাংকের শিবপুর শাখার ম্যানেজার ও ক্যাশ অফিসারের বিরুদ্ধে

জুন ৩০, ২০১৬ ৬:২৬ সকাল

স্থানীয় প্রতিনিধিঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় অগ্রণী ব্যাংকের শিবপুর শাখার ম্যানেজার ও অফিসারের (ক্যাশ) বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন, ব্যাংকের প্রধান সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার মো. শাহ আলম।

এ ঘটনায় ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার মো. শাহ আলমকে প্রধান করে দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে গ্রাহকদের ব্যাংকে জমাকৃত সাড়ে আট লক্ষ টাকা আত্মসাতের প্রমাণ মিলেছে।

অভিযুক্তরা হলেন অগ্রণী ব্যাংকের শিবপুর শাখার ম্যানেজার মো. শহীদুল ইসলাম ও অফিসার (ক্যাশ) ছোটন চন্দ্র মজুমদার।

ব্যাংকের একটি সূত্র জানায়, অগ্রণী ব্যাংক শিবপুর শাখার ম্যনেজার ও অফিসারের (ক্যাশ) বিরুদ্ধে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতসহ বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠে। অভিযোগটি ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার মো. শাহ আলমকে প্রধান করে দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত সাপেক্ষে কমিটি যে প্রতিবেদন দিয়েছেন তাতে বলা হয়েছে, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তিন গ্রাহকের কাছ থেকে সাড়ে আট লক্ষ টাকা আত্মসাতের প্রমাণ পাওয়া গেছে। রাজস্ব টিকেটের অজুহাতে অর্থ আত্মসাতের আলামত পাওয়া গেছে। বিদ্যুত বিল গ্রহণ রেজিস্ট্রার অনুযায়ী রাজস্ব টিকেটের স্থিতিতেও গড়মিল পাওয়া যায়। এ ছাড়া এফডিয়ার রেজিস্ট্রার পরীক্ষা করে অফিসার (ক্যাশ) ছোটন চন্দ্র মজুমদারের নামে ছয় মাস মেয়াদী আট লক্ষ টাকার একটি এফডিআর পাওয়া গেছে।

ব্যাংক সূত্র আরও জানায়, তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ব্যাংকের শিবপুর শাখার ম্যানেজার শহীদুল ইসলাম ও অফিসার ক্যাশ ছোটন চন্দ্র মজুমদারকে অন্যত্র বদলি করেছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়াও চলছে।

তবে ব্যাংকের অর্থ আত্মসাতের ঘটনাটি ধামচাপা দেয়ার জন্য ব্যাংকের একটি প্রভাবশালী চক্র পায়তারা করছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*