নারায়নগঞ্জে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তির অভিযোগে যুবদল নেতা কাউন্সিলর খোরশেদ খন্দকার গ্রেপ্তার

মার্চ ১৯, ২০১৮ ৬:৪১ দুপুর

মোঃ খোকন প্রধান

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটুক্তি ও বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে নারায়নগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদকে গ্রেপ্তার করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

সোমবার (১৯ মার্চ) দুপুর আড়াইটার দিকে পুলিশ তাকে থানার মাসদাইর এলাকাধীন আদর্শ স্কুলের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করেন। ধৃত যুবদল নেতা খোরশেদের বিভিন্ন নাশকতার অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে এবং এর আগেও সে গ্রেপ্তার হয়েছিল। এদিকে খোরশেদের দাবী তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া প্রতিটি মামলা মিথ্যা ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে দায়ের করা হয়েছে, সে দায়ের হওয়া সকল মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়েছেন।

উল্লেখ্য যে, মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদ নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ডে পর পর ৩য় বারের মতো নির্বাচিত কাউন্সিলর। সে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম জিয়ার উপদেষ্টা সদস্য এবং নারায়নগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারের আপন ছোট ভাই। বর্তমান আওয়ামী সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপি-জামাত জোটের নির্দেশিত প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে যুবদল নেতা মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদকে সক্রিয় দেখা যায়।

সুত্রে জানা গেছে, সোমবার দুপুরে নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ডের ভোটারদের মাঝে স্মার্ট কার্ড জাতীয় পরিচয় পত্র বিতরনের কার্যক্রম চলছিল ফতুল্লার মাসদাইরস্হ আদর্শ স্কুলের ভিতরের। এসময় উক্ত কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও মহানগর যুব দলের আহ্বায়ক মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদ। এসময় ফতুল্লা মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শাহ্জালালের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টীম মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন। ফতুল্লা মডেল থানার সদ্য যোগদান করা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর কাদের জানায়, ধৃত যুবদল নেতা মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদ অতি সম্প্রতি ফতুল্লার মাসদাইর এলাকাস্হ একটি স্কুলের অনুষ্ঠানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটুক্তি করেছিলেন এবং বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন বক্তব্য প্রদান করে বলে অভিযোগ রয়েছে ।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে ফতুল্লা মডেল থানা ও নারায়নগঞ্জ সদর মডেল থানায়। এদিকে নারায়নগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক ও কাউন্সিলর মাকসুদূল আলম খন্দকারকে পুলিশ গ্রেপ্তার করার সংবাদে তাৎক্ষনিক এক বিবৃতিতে জেলা বিএনপিরসহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমীন শিকদার এঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদের মুক্তি দাবী করেন। তিনি আরো বলেন, খোরশেদ একজন যুবদল নেতাই শুধু নয়, সে নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ডের জনগনের ভোটে পর পর তিন মেয়াদে সর্ব্বোচ ভোটে বিজয়ী হয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। বিনা ভোটের এই সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় কারনে বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমান সহ লাখ লাখ বিএনপির নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলা দায়ের করেছেন সেই সকল মামলা প্রত্যাহার সহ বেগম খালেদা জিয়া, জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, মাত্র কয়েক ঘন্টা পূর্বে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া যুবদল নেতা কাউন্সিলর মাকসুদূল আলম খন্দকার খোরশেদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করেন।